মধুরিমা রায়:‌ দীর্ঘদিন দেশের হয়ে লড়াইয়ের ময়দানে ছিলেন। এখন ষাট পেরিয়েছে বয়স। এবার রাজনীতির মাঠে এলেন অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল অধ্যাপক সুব্রত সাহা। দু হাত সমান চলে তাঁর, রান্না করতে ভালোবাসেন, গান গেয়ে ফেলেন গলা খুলে, একাধিক শৌর্য পদক পেয়েছেন। এরকম বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী এবারের রাসবিহারী বিধানসভা কেন্দ্রের ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী। 
aajkaal.in-‌এর মুখোমুখি হয়ে সুব্রত বাবু জানিয়েছেন, ‘‌ফ্রন্ট লাইনে পাবলিক সার্ভেন্ট’‌ হয়ে কাজ করে এসেছেন বহুবছর ধরে, এবারেও তাই করছেন। আলাদা করে বিষয়টাকে দেখছেন না তিনি। দীর্ঘদিন ধরে রাজ্যের সার্বিক অবনতি দেখেই তাঁর মনে হয়েছে সাধারণ মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে হবে। তাই তাঁর কাছে বিজেপি থেকে প্রস্তাব আসায়, তিনি এগিয়ে এসেছেন ভোটের লড়াইতে। 
রাসবিহারীর মানুষের পানীয় জল থেকে নিকাশি ব্যবস্থার দুর্গতি, রাস্তাঘাট থেকে অর্থনৈতিক সমস্যা, সবদিকেই নজর রাখছেন তিনি।

সুব্রত বাবুর অভিমত ‘‌রাজ্যে পর্যটন শিল্পের অবনতি থেকে শুরু করে নিরাপত্তাহীনতা সবদিকেই সমস্যা। রাজ্য সরকার রাজ্যে শুধু গুন্ডারাজ চালিয়েছে।’‌ 
আর শীতলকুচির ঘটনা উল্লেখ করলে অবসরপ্রাপ্ত এই লেফটেন্যান্ট জেনারেল শুধুমাত্র একটা শব্দ ব্যয় করছেন, ‘‌দুর্ভাগ্যজনক’।‌ ‘‌Make in india’‌ প্রজেক্টের পোস্টার বয় সুব্রত সাহা অভিযোগ করছেন, দেশের প্রথম ডিফেন্স ইন্ডাস্ট্রি এই রাজ্যেই তৈরি হয়েছিল। কাশীপুরে গান অ্যান্ড শেল ফ্যাক্টরি থেকে ইছাপুরের রাইফেল ফ্যাক্টরি এরকম বেশ কিছু জায়গাকে কেন্দ্রীয় সরকার এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইলেও রাজ্য সরকার ঠিক মতো নজর দেয়নি। তাই সেই দিকে অনেক বেশি নজর দিতে চান সুব্রত বাবু। সারা জীবন যুদ্ধক্ষেত্রে কাটিয়ে সুব্রত বাবু মনে করেন না রাজনীতি কোনও যুদ্ধ। তাঁর কেন্দ্রের ভোটারদের উপর ভরসা রেখেই জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী রাসবিহারী কেন্দ্রের বিজেপির এই প্রার্থী।

Back To Top