আজকালের প্রতিবেদন- মাঝেরহাট এলাকায় দ্বিতীয় বিকল্প পথের প্রস্তাব দিল রেল। দ্রুত সমীক্ষা করে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য। এ ব্যাপারে রেলের সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে। ভেঙে–‌পড়া মাঝেরহাট সেতুর বিকল্প রাস্তা তৈরি করতে এদিন মুখ্যসচিব মলয় দে–‌র নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি কমিটি তৈরি করেছে রাজ্য সরকার। পুজোর আগেই মাঝেরহাট সেতুর বিকল্প পথ তৈরি করতে চায় রাজ্য। সবাই একসঙ্গে কাজ করে দর্শনার্থীদের পুজো দেখার সুযোগ করে দেবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন কলকাতার নগরপাল রাজীব কুমার।
মাঝেরহাট এবং ব্রেস ব্রিজ— এই দুটি স্টেশনের মাঝখানে একটি রাস্তা রয়েছে। সেখানে রেল লাইনের ওপর লেভেল ক্রসিংও করা রয়েছে। ওই রাস্তাটি বেশ চওড়া। সেখান দিয়ে প্রাইভেট গাড়ি চলাচল করে। রাস্তাটি তেমনভাবে ব্যবহার করা হয় না। অনেকে ওই রাস্তার ব্যাপারে বিশেষ জানেনও না। সেটি ব্যবহার করা যেতে পারে। রেল এ ব্যাপারে রাজ্যকে প্রস্তাব দিয়েছে। রাজ্য সেটির ব্যাপারে সমীক্ষা করে দেখবে। রাস্তা ব্যবহারের ব্যাপারে রাজ্যকে সাহায্য করবে রেল। ওই রাস্তাটি চালু করা তুলনামূলক সহজ। কারণ সেখানকার রেল লাইনের ওপর লেভেল ক্রসিং রয়েছে। লেভেল ক্রসিং বসাতে রেল মন্ত্রক থেকে অনুমতি নিতে হবে। এক্ষেত্রে তার দরকার পড়বে না। ফলে সমীক্ষার পর রাজ্য সম্মতি দিলে রাস্তা অনেক সহজে চালু করা যাবে। বেহালার সঙ্গে বাকি কলকাতার যোগাযোগে আরও সুবিধে হবে। আজ, মঙ্গলবার পূর্ত দপ্তরের পর্যালোচনা বৈঠক রয়েছে। অন্য অনেক বিষয়ের সঙ্গে এ ব্যাপারেও আলোচনা করা হতে পারে। এদিন কলকাতায় এক অনুষ্ঠানে মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়া এবং তার পরবর্তী পরিস্থিতি সামলানো নিয়ে রাজীব কুমার বলেন, ‘‌চ্যালেঞ্জ এসেছে, তা সামলাতে পারব।’‌
‌মতিলাল গুপ্ত রোড, রাজা রামমোহন রায় রোড, করুণাময়ী ঘাট রোড, সিজিআর রোড, গার্ডেনরিচ রোড, বি কে রোড মেরামত করবে কলকাতা পুরসভা। আংশিক মেরামত করবে তারাতলা রোড থেকে ডি এইচ রোড ও রামনগর মোড় পর্যন্ত। যার দৈর্ঘ্য প্রায় ৬ কিলোমিটার।‌

শুরু হল অস্থায়ী রাস্তা তৈরির কাজ। মাঝেরহাটে। সোমবার। ছবি— কুমার রায় 

জনপ্রিয়

Back To Top