মনোজিৎ মালাকার:‌ আবেগের ব্রিগেড। রাজনীতির বাইরেও কিছু ছবি থাকে। যেগুলো দেখে দলগুলি হয়ত আরও একটু চাঙ্গা হয়। জোটের ব্রিগেডেও দেখা গেল এরকম কিছু চিত্র। নাম শেখ জাহেদ আলি, বাড়ি হাওড়ায়। রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন। ২৭ বছর আগে এই কাজ করতে গিয়ে পা হারান তিনি। তিন দশক ধরে সঙ্গী একটাই পা। হাতে ক্র্যাচ নিয়েই ব্রিগেডের মাঠে এসেছিলেন হাওড়ার এই বাম সমর্থক। লাল ঝান্ডার প্রতি নিখাদ ভালবাসা থেকেই তিনি আজ ব্রিগেডমুখী। বললেন, ‘ক্লাব—খয়রাতিই করছে সরকার, কিন্তু উন্নয়ন আদৌ হচ্ছে না।' ব্রিগেডে ঘুরতে ঘুরতে দেখা হয়ে গেল আরও এক জনের সঙ্গে। তিনি আইএসএফ কর্মী। জন্ম থেকেই হাঁটতে পারেন না। হামাগুড়ি দিয়ে ব্রিগেডের মাঠে এসেছেন। তিনি বললেন, ‘ভাইজানের বক্তৃতা শুনতে এসেছি, উনি যা বলবেন আমরা তাই করব।'  ব্রিগেডে রাজনৈতিক কচকচানি ছিল, শাসকপক্ষকে হুংকারও শানিয়েছে জোট শরিকরা। কিন্তু রাজনীতির বাইরে এঁরা ব্যতিক্রম। স্রেফ দলটাকে ভালবেসে চলে এসেছেন। শারীরিক অক্ষমতাকে পাত্তা না দিয়ে। আমজনতার চোখ জুড়ে থাকা ‘সুদিনের স্বপ্ন‌’‌ সফল হবে তো?

জনপ্রিয়

Back To Top