আজকাল ওয়েবডেস্ক: লকডাউন পর্বে পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশাই ছিল দেশের খবরের শিরোনামের অন্যতম অংশ। সুটকেসের উপর ঘুমন্ত শিশুসন্তান সহ সুটকেস ঠেলে নিজের গ্রামাভিমুখে হাঁটতে থাকা শ্রান্ত মা, অথবা, স্টেশনে অনাহার আর পথশ্রমে মৃত মা ঘুমিয়ে পড়েছে ভেবে ছোট্ট শিশুর তাকে ঘুম থেকে তোলার অসহায় চেষ্টার ছবি আজ বিশ্ব দরবারে দারিদ্রের করুণ ছবি প্রকট করেছে। সেই সব পরিযায়ী মায়েদের সম্মান জানাল বেহালার বড়িশা ক্লাব পুজো কমিটি।
শিশুসন্তান কোলে এক পরিযায়ী মা–কে শিশু কার্তিক কোলে দেবীর রূপে ভেবেছেন সরকারি আর্ট অ্যান্ড ক্রাফ্‌ট কলেজের দুই প্রাক্তন ছাত্র রিন্টু দাস এবং পল্লব ভৌমিক। প্রতিমা, মন্ডপের মূল ভাবনা রিন্টুর। আর ফাইবার গ্লাসে সেই প্রতিমা গড়েছেন পল্লব। প্যাঁচা কোলে লক্ষ্মী এবং হাঁস কোলে সরস্বতীর রূপেও রয়েছে পরিযায়ী শ্রমিক সন্তানদের ছায়া। থাকছে গণেশের মূর্তিও। চারজনকে নিয়ে ওই পরিযায়ী মা হেঁটে যাচ্ছেন দেবী দুর্গা প্রতিকৃতি রূপ ১০ ভুজার আলোকচক্রের দিকে, এভাবেই নদিয়ার ঘূর্ণিতে, নিজের স্টুডিওয় মূর্তি গড়ছেন শিল্পী। 
এই নির্মীয়মাণ মূর্তির ছবি প্রকাশিত হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনদের একাংশের অভিযোগ, প্রয়াত বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী বিকাশ ভট্টাচার্যের তোলা, শিশু কোলে মায়ের একটি ছবি থেকেই মূর্তি গড়েছেন পল্লব ভৌমিক। অথচ সেটা উল্লেখ করেননি। এব্যাপারে সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে শিল্পী বললেন, লকডাউনের সময়, সন্তান কোলে হাঁটতে থাকা পরিযায়ী মায়েদের দুর্দশার ছবি তাঁর মনে গেঁথে গিয়েছিল। সেই মায়েদেরই এবার তাঁর কাছে দেবীর অনুপ্রেরণা। আর ছোট থেকেই বিকাশ ভট্টাচার্যের ছবি দেখে বড় পল্লবের কাছে প্রয়াত শিল্পীর ছবিও মূর্তি গড়ার অনু্প্রেরণা। এমনকি লক্ষ্মী, সরস্বতীর প্রতিমায় রয়েছে তাঁর নিজের মেয়ের শাড়ি পরা ছবির আদলও, বলছেন পল্লব।
ভিডিও:‌ সুদক্ষিণা মিত্র

জনপ্রিয়

Back To Top