তারিক হাসান- নির্ধারিত সময় মেনেই এবারও ১ জুন কেরলে বর্ষা শুরু হয়ে যেতে চলেছে। তার আগেই অবশ্য এ রাজ্যে শুরু হয়ে গেছে প্রাক্‌ বর্ষার বৃষ্টি। তাপ বাড়লে আগামী কয়েকদিন মাঝেমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টি ঝরবে। বৃহস্পতিবার পূর্বাভাসে এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। এদিকে, বুধবারের কালবৈশাখী ঝড়বৃষ্টিতে রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। হাড়োয়ায় দেওয়াল চাপা পড়ে ২ জন, দুর্গাপুরে বাজ পড়ে একজন এবং আরামবাগে গাছ পড়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে।
বিহার থেকে উত্তর পূর্ব ভারত পর্যন্ত একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা দানা বেঁধে ছিল। সেটি একটু নীচের দিকে নেমে আসাতেই বুধবার দক্ষিণবঙ্গে কালবৈশাখী ঝড়বৃষ্টি হয়। তাতে এদিন তাপমাত্রা বেশ খানিকটা কমে গেছে। বৃহস্পতিবার কলকাতায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৬.‌৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৮ ডিগ্রি কম। সর্বনিম্ন ২২.‌৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, এটি স্বাভাবিকের চেয়ে ৫ ডিগ্রি কম। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, দক্ষিণবঙ্গের হাওয়ায় প্রচুর জলীয় বাষ্প রয়েছে। যা বাড়তি তাপমাত্রায় বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি করে ঝড়বৃষ্টির পরিবেশ তৈরি করতে পারে। তবে তাপমাত্রা কম থাকায় সেই সম্ভাবনা কিছুটা কমেছে। তবে আকাশে মেঘ রয়েছে। তাপ বাড়লে সেই মেঘে মাঝেমধ্যে প্রাক্‌ বর্ষার বৃষ্টি ঝরতে পারে। ঝড়বৃষ্টির কারণে এদিন দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সর্বত্রই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে বা আশপাশে।
এদিকে, এদিনই মৌসুমি হাওয়া আরও কিছুটা সক্রিয় হয়ে আন্দামানের সীমানা অতিক্রম করেছে। আরও কিছুটা এগিয়ে ১ জুন তা কেরলে ঢুকে পড়তে পারে। এ রাজ্যে কবে বর্ষা শুরু?‌ আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, স্বাভাবিক নিয়মে ১০ জুন এ রাজ্যে বর্ষা শুরু হয়ে থাকে। ভারতের মূল ভূখণ্ডে মৌসুমি হাওয়া ঢুকলে তবেই বলা সম্ভব এ রাজ্যে কবে বর্ষা শুরু হবে। ঘূর্ণিঝড় আমফান–এর প্রভাবে আন্দামানের দক্ষিণে মৌসুমি হাওয়া থমকে গিয়েছিল। বুধবার ফের তা গতি পেয়েছে। রাজ্যে আপাতত যে মেঘ রয়েছে তা প্রাক্‌ বর্ষার। সেই মেঘে তাপ বাড়লেই বৃষ্টি ঝরবে। হতে পারে কালবৈশাখী ঝড়ও। ‌‌

ভাসছে উত্তর কলকাতার চোরবাগান। ছবি:‌ পিটিআই

জনপ্রিয়

Back To Top