আজকাল ওয়েবডেস্ক: হাইকোর্টে ধাক্কা খেলেন বিজেপি নেতা সৌমেন্দু অধিকারী। কাঁথি পুরসভার পুর প্রশাসকের চেয়ারম্যান পদ থেকে তাঁকে কোনও আইনি কারণ না দর্শিয়েই সরানো হয়েছে। এই অভিযোগে হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন সৌমেন্দু অধিকারী। সেই মামলার শুনানিতে সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম সিনহা বললেন, পৌর আইন অনুযায়ী যে কোনও মানুষকেই বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর বা পুর প্রশাসক হিসাবে নিয়োগ করতে পারে রাজ্য সরকার। সৌমেন্দুর হয়ে আদালতে সওয়ালে আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, একজন নির্বাচিত কাউন্সলিরকে সরিয়ে যাঁকে ওই পদে বসানো হয়েছে তিনি নির্বাচিত কাউন্সিলর নন। এক্ষেত্রে কোনও প্রশাসনিক কারণ আছে কিনা সেই প্রশ্ন তোলেন তিনি। পাল্টা সওয়ালে রাজ্যের তরফে অ্যাটর্নি জেনারেল কিশোর দত্ত বলেন, পৌর আইন অনুযায়ী এই ক্ষমতা আছে রাজ্য সরকারের হাতে। উদাহরণস্বরূপ হাইকোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্টের বেশ কিছু রায় তুলে ধরেন। তারপরই ওই নির্দেশ দেন বিচারপতি। মঙ্গলবার দুপুর দুটো নাগাদ ফের এই মামলার শুনানি আছে। বিচারপতি সিনহা সৌমেন্দুর আইনজীবীকে বলেছেন, ওই দিন তাঁর কোনও আইনি জবাব থাকলে তা তিনি দিতে পারেন।
প্রসঙ্গত, ২০২০–র ১৯ মে কাঁথি পুরসভার বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রের চেয়ারম্যান নিযুক্ত করা হয়েছিল সৌমেন্দু অধিকারীকে। ৩০ ডিসেম্বর  রাজ্য বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে দেয় তাঁকে ওই পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হচ্ছে। পরদিনই হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন সৌমেন্দু। 

জনপ্রিয়

Back To Top