আজকাল ওয়েবডেস্ক: গোপনে চলছিল অস্ত্র পাচার।‌ ট্রেনে বস্ত্র নিয়ে হকারি করত যুবক। দেখে বোঝার উপায় নেই তলায় রয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র। আর তা নিয়ে চলত কারবার৷ কাপড়ের মধ্যে অস্ত্র লুকিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করার অভিযোগে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করল বারুইপুর স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ৷ ধৃতের নাম হায়দার আলি৷ সে মেটিয়াবুরুজ এলাকার বাসিন্দা৷ ট্রেনে ফেরি করার নেপথ্যে চলত অস্ত্র কারবার। যার হদিশ পেয়ে এখন কপালে চোখ উঠেছে পুলিস কর্তাদের।
পুলিস সূত্রে খবর, ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৫টি ওয়ান সাটার বন্দুক এবং ৪০ রাউন্ড গুলি৷ বারুইপুর স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ বারুইপুর থানার এলাকার কুমোরহাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে৷ সূর্যপুর ষ্টেশনে নেমে একটি অটোতে চেপে কুমোরহাটে পৌঁছয় সে৷ তখন বারুইপুর স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের সাদা পোশাকে থাকা পুলিশকর্মীরা তাকে গ্রেপ্তার করে৷ তাকে কাপড়ের ব্যবসায়ী বলেই জানত স্থানীয় বাসিন্দারা৷ কাপড়ের ভেতরের মধ্যে অস্ত্র উদ্ধার হওয়ায় অবাক তাঁরা৷
তাকে এখন দফায় দফায় জেরা করে অস্ত্র আমদানির মূল চক্রীর নাম জানার চেষ্টা করছে পুলিস। দু’‌দিন আগেই জীবনতলা থানা এলাকায় অস্ত্র কারখানা এবং প্রচুর অস্ত্রের হদিস পেয়েছিল বারুইপুর জেলার পুলিস৷‌ তবে এই ঘটনা গোটা জেলাকে নাড়িয়ে দিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। 

জনপ্রিয়

Back To Top