বিজয়প্রকাশ দাস,পূর্ব বর্ধমান: ২১ জুলাইয়ের সমর্থনে লাগানো মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ছবি–সহ বড় বড় পতাকা–ফেস্টুন ছিঁড়ে দেওয়া ও তৃণমূল নেতার গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল বিজেপি–র বিরুদ্ধে। পরপর এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে বর্ধমানের দেওয়ানদিঘি ও মির্জাপুর এলাকায়। এ ব্যাপারে বর্ধমান থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই অভিযোগ পাওয়ার পরই তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।
মির্জাপুর তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি আদিত্যকুমার ঘোষ বৃহস্পতিবার বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ করে বলেছেন, গত লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর থেকেই বর্ধমান ১ নম্বর ব্লকের মির্জাপুর গ্রামে বিজেপি–র হার্মাদরা তৃণমূলের নেতা ও কর্মীদের ওপর নানাভাবে আক্রমণ চালাচ্ছে। এলাকায় শান্তি–শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য অত্যাচারিত তৃণমূল নেতা–কর্মীরা মুখ বুজে সহ্য করে চলেছেন। কিন্তু আগামী একুশে জুলাই শহিদ দিবস উপলক্ষে ধর্মতলা যাওয়ার প্রস্তুতি হিসেবে মির্জাপুর ও দেওয়ানদিঘি গ্রামে প্রচুর বড় বড় ফ্লেক্স লাগানো হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর ছবি–সহ ওই সব ফ্লেক্সগুলিকে বুধবার রাতে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ছিঁড়ে টুকরো টুকরো করে দেয়। সেই সঙ্গে দলীয় পতাকাগুলিও ছিঁড়ে নর্দমায় ফেলে দেয়। এভাবে শান্ত মির্জাপুরকে অশান্ত করার চক্রান্ত শুরু করেছে। তাই  বিজেপি হার্মাদদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি। এই ঘটনার তদন্ত করে উপযুক্ত দোষীদের গ্রেপ্তার করে শাস্তিরও দাবি জানানো হয়েছে। পাশাপাশি বাড়ির পাশে থাকা এক তৃণমূল নেতার গাড়ি বুধবার রাতে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ভাঙচুর করেছে বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছে। পরপর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।‌

 ছিঁড়ে দেওয়া তৃণমূলের ফ্লেক্স। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top