নিরুপম সাহা, পেট্রাপোল, ২৪ জুন- কাজের সন্ধানে চোরা পথে ভারতে এসে দালাল চক্রের হাতে পড়ে দিল্লির নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি হয়ে গিয়েছিল এক বাংলাদেশি নাবালিকা। প্রায় এক বছর পর প্রশাসন এবং স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাত ধরে সোমবার পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে নিজের দেশে ফিরতে পারল ওই নাবালিকা। নিজের দেশে ফিরতে পেরে বেজায় খুশি নাবালিকা।
শক্তি বাহিনী নামে দিল্লির একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এর আগেও বেশ কয়েকজন এমন পাচার হওয়া বাংলাদেশি নাবালিকাকে দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করেছে। এই সংস্থার পশ্চিমবঙ্গের এক কর্মকর্তা অজিত রায় জানান, বছর খানেক আগে বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর থানার চঁাদখালি গ্রামের একটি দরিদ্র পরিবারের ১৬ বছরের এক নাবালিকা কাজের সন্ধানে দালালের হাত ধরে চোরা পথে ভারতে প্রবেশ করেছিল। এর পর নিজের অজান্তেই পাচারকারীদের হাতে পড়ে যায়। তারা দিল্লিতে নিয়ে গিয়ে তাকে সেখানকার একটি নিষিদ্ধপল্লীতে বিক্রি করে দেয়। সম্প্রতি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা শক্তি বাহিনী নাবালিকার সন্ধান পায়। তখন তারা প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়ে দিল্লি পুলিশের মাধ্যমে নাবালিকাকে উদ্ধার করে চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির হাতে তুলে দেয়।
উদ্ধারের পর জানা যায় ওই নাবালিকা অন্তঃ‌সত্ত্বা। এর পর তার চিকিৎসা করিয়ে দিল্লির ওমেন কমিশন বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে বাংলাদেশে নাবালিকার বাড়ির ঠিকানায় খোঁজ নেয়। তার পর সরকারি পদ্ধতি মেনে তাকে দেশে ফেরানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেই মতোই ওই নাবালিকাকে নিয়ে এদিন দিল্লি থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছয় শক্তি বাহিনী এবং দিল্লি পুলিশের এক প্রতিনিধি দল। তাদের সঙ্গে কলকাতার প্রতিনিধিরা নাবালিকাকে নিয়ে এদিন দুপুরে পেট্রাপোল সীমান্তে এসে পৌঁছন। তার পর কাগজপত্রের নিয়ম সংক্রান্ত কাজ সেরে ওই নাবালিকাকে বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষী বাহিনী এবং বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিনিধিদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। 

পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশের পথে নাবালিকা। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top