আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০১১ সালে তিনি প্রথম ভোটে জিতে বাংলায় ক্ষমতায় এসেছিলেন। ৩৪ বছরের বাম শাসনে ইতি টেনেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। সেবারও তিনি প্রার্থী করেছিলেন দেবশ্রী রায়, চিরঞ্জিতের মতো তারকাদের। সেই কৌশল কাজেও দিয়েছিল। তার আগে ২০০৯ সালের লোকসভা ভোটে শতাব্দী রায়, তাপস পালকে প্রার্থী করে সাফল্য পেয়েছিলেন। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনেও সেই ধারা অব্যাহত। প্রার্থী হন দেব, সন্ধ্যা রায়, মুনমুন সেনের মতো তারকা। ২০১৯–এ একই কৌশল কাজে এসেছে। 
২০২১ সালেও সেই পুরনো কৌশল ফেল করল না। কঠিন জমিতে নিজেদের তারকা ইমেজকে কাজে লাগিয়ে জিতে এলেন তারকা প্রার্থীরা। সোহম, লাভলি মিত্র থেকে জুন মালিয়া— জয় পেলেন সকলেই। শিবপুরে জিতলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারিও। শুধু কঠিন লড়াইয়ের পরেও শেষ মুহূর্তে হেরে গেলেন সায়নী ঘোষ। হারলেন কৌশানী মুখার্জিও। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা মুকুল রায়ের কাছে হেরেছেন তিনি কৃষ্ণনগর উত্তর আসনে। 
সোনারপুর দক্ষিণে জয়ী হয়েছেন তৃণমূলের লাভলি মিত্র। প্রতিপক্ষ ছিলেন বিজেপি–র অঞ্জনা বসু। ব্যারাকপুরে জয়ী হয়েছেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। এই জয় খুব সহজ নয়। কারণ ব্যারাকপুর বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গড়। সেখানে সব ভোটেই কমবেশি ঝামেলাও লেগেই থাকে।
মেদিনীপুরে জয়ী হয়েছেন অভিনেতা জুন মালিয়া। রাজারহাট গোপালপুর কেন্দ্রে বিজেপি–র শমীক ভট্টাচার্যকে হারিয়েছেন গায়িকা অদিতি মুন্সি। ১০ হাজারেরও বেশি ভোটে। দুঁদে রাজনীতিক শমীককে হারানো সহজ নয়। ২০১৬ সালেও বিধানসভা ভোটে জিতেছিলেন তিনি। উলুবেড়িয়া পূর্ব থেকে জয়ী হয়েছেন ফুটবলার বিদেশ বসু। কোন্নগরে জিতলেন কাঞ্চন মল্লিক।
কিন্তু  বিজেপি একই কৌশল নিয়েও কিন্তু সফল হয়নি। ভবানীপুর কেন্দ্রে হেরেছেন রুদ্রনীল ঘোষ। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি–তে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। শেষরক্ষা হল না। বেহালা পূর্বে হেরেছেন পায়েল সরকার। বেহালা পশ্চিমে হেরেছেন শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি। সোনারপুর দক্ষিণে হেরেছেন টেলি–অভিনেতা অঞ্জনা বসু। 
শ্যামপুর থেকে হারলেন তনুশ্রী চক্রবর্তী। তিনিও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি–তে যোগ দেন। উলুবেড়িয়া পূর্বে হারলেন পাপিয়া অধিকারী। চণ্ডীতলায় হারলেন যশ দাশগুপ্ত। এমনকী সাংসদ–গায়ক বাবুল সুপ্রিয়ও হারলেন টালিগঞ্জে। চাইলেও মানুষের জন্য আর কাজ করা হল না এই প্রার্থীদের। 
এর কারণ কী?‌ যে কৌশল তৃণমূলকে সাফল্য এনে দিল, তা বিজেপি–কে এভাবে দয়ে ফেলল কেন?‌ তাহলে মমতা ম্যাজিকই কি তৃণমূলে তারকাদের জয়ের মূল কারণ?‌ তারকারা নিজে কিন্তু স্বীকার করছেন সেই তত্ত্বই। 

Back To Top