মলয় সিনহা: বড়সড় বিপর্যয় থেকে বেঁচে নর্থ আমেরিকার সর্বোচ্চ আগ্নেয়গিরি পিকো দে ওরিজাবা জয়  করেন সত্যরূপ সিদ্ধান্ত। বৃহস্পতিবার ভোরে মেক্সিকোর সর্বোচ্চ আগ্নেয়গিরিতে পা রাখেন বাংলার এই পর্বতারোহী। এর উচ্চতা ৫৬৩৬ মিটার। আর মাত্র একটি সর্বোচ্চ আগ্নেয়গিরি জয় করলেই নতুন রেকর্ডের অধিকারী হবেন সত্যরূপ। এই অভিযান করতে গিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেলেন সত্যরূপ–‌সহ আরও ২ জন। আগ্নেয়গিরি জয় করে নিচে নামার সময় দুর্ঘটনার সম্মুখীন হয়েছিলেন তিনি ও তাঁর গাইড। প্রাণে বেঁচে গেলেও গুরুতর আহত হয়েছেন গাইড সালভাদর। শৃঙ্গ জয় করে নামার সময় বড় পাথর হঠাৎ গড়িয়ে পড়ে, সেই সময় পাথরে আঘাতে পা ভেঙে যায় গাইড সালভাদরের। চোট পেয়েছেন সত্যরূপও। তবে তেমন মারাত্মক নয় বলে জানা গেছে। সত্যরূপ তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের ফোনে জানিয়েছেন, বেস ক্যাম্পে ফিরে এসেছেন তাঁরা।
বৃহস্পতিবার ভোরে মেক্সিকোর পিকো দে ওরিজাবা জয় করেন তিনি। এই সক্রিয় আগ্নেয়গিরি উত্তর আমেরিকার তৃতীয় সর্বোচ্চ শৃঙ্গ। যাত্রাপথ দুর্গম ছিলই। বিপদসঙ্কুল পথ দিয়ে আগ্নেয়গিরি চূড়ায় পৌঁছন তিনি। চূড়ায় পৌঁছনোর আগে শেষ ২০০ মিটার খুবই বিপদসঙ্কুল ছিল বলে ফোনে বন্ধু দীপাঞ্জনকে জানিয়েছেন সত্যরূপ। তিনি আরও জানান, শৃঙ্গ জয় করে নামার সময় এই বিপদ ঘটে। এরপর প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা পাহাড়ের দুর্গম পথে গাইড সালভাদরকে নিয়ে নেমেছেন  সত্যরূপ। তাঁকে সহযোগিতা করেছেন আরও এক সহযাত্রী মাও। শেষ পাওয়া খবর, বেস ক্যাম্প থেকে আহত সালভাদর ও সত্যরূপকে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই খবর শুনে সত্যরূপের মা গায়ত্রীদেবী জানান, ‘খুবই চিন্তায় ছিলাম। ওর সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে।’‌
বিশ্বরেকর্ডের জন্য এবার তাঁর লক্ষ্য দক্ষিণ মেরুর সর্বোচ্চ আগ্নেয়গিরি। আন্টার্কটিকায় অবস্থিত মাউন্ট সিডলেয় আগামী বছরের জানুয়ারিতে অভিযান শুরু করবেন বলে সত্যরূপ আগেই জানিয়েছিলেন। এই শৃঙ্গ জয় হলেই সাতটি শৃঙ্গ ও সাতটি আগ্নেয়গিরি জয়ের নতুন বিশ্বরেকর্ড করবেন এই বাঙানি পর্বতারোহী। সূত্রের খবর, রাজ্যের ক্রীড়া ও যুবকল্যাণ দপ্তরের তরফ থেকে সত্যরূপকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে। নিজের কৃতিত্বের এবং সৌভাগ্যবশত বেঁচে ফেরার জন্য ঈশ্বরকে ধন্যবাদ দেন সত্যরূপ। ‌‌

পিকো দে ওরিজাবা–র চূড়ায় সত্যরূপ সিদ্ধান্ত। 

জনপ্রিয়

Back To Top