যজ্ঞেশ্বর জানা, দিঘা: বিশ্ববাংলা বাণিজ্য সম্মেলনের উদ্বোধনে দিঘা আসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ১১–১২ ডিসেম্বরের দুইদিনের সেই বাণিজ্য সম্মেলনকে ঘিরে প্রশাসনিক তৎপরতা এখন তুঙ্গে পূর্ব মেদিনীপুরে। ১১ ডিসেম্বর দিঘা কনভেনশন সেন্টারে বাণিজ্য সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই দিন সন্ধেয় নিউ দিঘার যাত্রানালায় একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও উদ্বোধন করবেন তিনি। ১২ ডিসেম্বর শেষ হবে বাণিজ্য সম্মেলন।
রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তর ছাড়াও জেলা প্রশাসন, পুলিশ এবং দিঘা–শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদ সম্মেলনের জন্য দিঘার পরিকাঠামো ও নিরাপত্তার বিষয়ে জোর কদমে প্রস্তুতি নিচ্ছে। সম্মেলনে শিল্পপতিদের আসার বিষয়টি দেখাশোনা করছে রাজ্য শিল্পোন্নয়ন নিগম। বুধবার রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে জেলাশাসক পার্থ ঘোষ, জেলা পুলিশ সুপার ভি সলেমান নেশাকুমার ও অন্য পুলিশকর্তারা পরিদর্শন করেছেন কনভেশন সেন্টার–সহ যাত্রানালার অনুষ্ঠান মঞ্চ। সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে এদিন বিকেলে ওল্ড দিঘার সৈকতাবাসে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন স্বরাষ্ট্র সচিব এবং জেলা প্রশাসনের আধিকারিকেরা। গত আগস্টে দিঘায় আন্তর্জাতিক মানের কনভেনশন সেন্টারের উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ঘোষণা করেছিলেন, আগামী ডিসেম্বর মাসে পরবর্তী বিশ্ববাংলা বাণিজ্য সম্মেলন হবে দিঘায়। 
এই সম্মেলনে শিল্পপতিদের কাছে জেলার হলদিয়া শিল্পাঞ্চলের আরও অগ্রগতি, তাজপুর বন্দর গড়ে তোলা–সহ সৈকতকে পর্যটকদের গন্তব্য হিসেবে তুলে ধরা হবে বলে জানিয়েছেন জেলা সভাধিপতি দেবব্রত দাস। বাণিজ্য সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে দিঘা–সহ শহরের সৌন্দর্যায়নে তৎপরতা শুরু হয়েছে। টাস্কফোর্স গঠন করে ইতিমধ্যে উচ্ছেদ করা হয়েছে হকারদের। ঝুপড়িমুক্ত করা হয়েছে দিঘা বাইপাসকে। এ ছাড়া রাস্তাঘাট সংস্কার থেকে শুরু করে দিঘাকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে চলছে সাজসজ্জার কাজও। জেলাশাসক পার্থ ঘোষ বলেন, ‘বিশ্ববাণিজ্য সম্মেলনকে কেন্দ্র করে যাবতীয় পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পরিচ্ছন্নতা ও নিরাপত্তায় জোর দেওয়া হয়েছে।’

জনপ্রিয়

Back To Top