‌বিজয়প্রকাশ দাস, পূর্ব বর্ধমান: ‘‌দিদিকে বলো’‌ কর্মসূচিতে গিয়ে বহু মানুষ দু’বার করে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের মাধ্যমে ঘর পেয়েছেন বলে জানতে পারলেন রায়নার বিধায়ক নেপাল ঘোড়ুই। সোম এবং মঙ্গলবার দু’দিন ধরে তিনি রায়নার ছোটবৈনান গ্রামে ‘‌দিদিকে বলো’‌ কর্মসূচিতে অংশ নেন। সেখানে দলীয় কর্মী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর কন্যাশ্রী প্রকল্প–সহ ধারাবাহিক উন্নয়নের নানা সুফলের কথা সাধারণ মানুষ বিধায়কের সামনে তুলে ধরেন। এর পাশাপাশি কেন্দ্রীয় ঘর বিলি নিয়ে মারাত্মক দুর্নীতির অভিযোগও তুলেছেন তঁারা। 
তঁারা বিধায়ককে জানিয়েছেন সিপিএমের কারসাজিতে কীভাবে রায়নার বহু মানুষ দু’বার করে কেন্দ্রীয় প্রকল্পে ঘর পেয়েছেন! অতীতে ইন্দিরা আবাস যোজনায় এবং পরে গীতাঞ্জলি প্রকল্পেও ঘর পেয়েছেন তঁারা। স্বভাবতই একজন দু’বার করে ঘর পাওয়ার ফলে প্রকৃত গরিবরা ঘর পাননি। ‘‌দিদিকে বলো’‌ কর্মসূচিতে ছোটবৈনান গ্রামে সোমবার বিকেলে প্রায় কয়েকশো সাধারণ মানুষের সঙ্গে অভাব–অভিযোগ নিয়ে বৈঠক করেন বিধায়ক। বিধায়কের কাছে মারাত্মক অভিযোগ করেন বহু গরিব দুঃস্থ পরিবার। তঁারা অভিযোগ করে বলেছেন, ‘‌বহু পরিবার অতীতে সিপিএমের চালাকিতে ইন্দিরা আবাস যোজনার ঘর পেয়েছেন। আবার গীতাঞ্জলি প্রকল্পেও এখন ঘর পাচ্ছেন।’‌ নেপালবাবু বলেন, ‘‌যাদের কঁাচা বাড়ি ছিল, তাদের অনেককেই বাংলা আবাস যোজনায় পাকা বাড়ি করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় প্রকল্প ইন্দিরা আবাস যোজনায় বহু মানুষকে ঘর না দিয়ে সামান্য টাকা দিয়ে কাটমানি নিয়েছে সিপিএমের লোকেরা।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top