আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দ্বিতীয় দফার ভোট দান শুরু হতেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠল রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের চোপড়া।  এলাকার বাসিন্দাদের ভোটদানে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। খবর করতে গিয়ে আক্রান্ত হন সাংবাদিকরাও। প্রতিবাদে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে পুলিসকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। পরে পুলিস এবং বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আটক করা হয় অভিযুক্ত দুষ্কৃতীকে। তৃণমূলের অভিযোগ বিজেপির প্ররোচনায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে গ্রামবাসীরা।

 
গণ্ডগোলের খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জেলা প্রশাসনকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এর আগে রায়গঞ্জ এবং হেমতাবাদে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিসকে লক্ষ্য করে বোমা এবং ইট ছোড়ার অভিযোগ।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রেণ আনতে নামানো হয় র‌্যাফ এবং আধাসেনা। কাঁসাদে গ্যাসের শেল ফাটিয়ে জনতাকে ছত্রভঙ্গ করা হয়। 
এদিকে কালিয়াগঞ্জে প্রথমে ভোট দিতে পারেননি রায়গঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাসমুন্সি। পরে ইভিএম চালু হওয়ায় ভোট দেন তিনি। এবার প্রথম ভোট দিলেন তাঁর ছেলে মিছিল। 

জনপ্রিয়

Back To Top