বুদ্ধদেব দাস,খড়্গপুর: খড়্গপুর সদর বিধানসভার উপনির্বাচনে ইস্তেহার প্রকাশ করে প্রতিটি মানুষের কাছে উন্নয়ন পৌঁছে দেওয়াকেই প্রথম কাজ হিসেবে উল্লেখ করল তৃণমূল। রাজ্য পুর ও নগরায়ন দপ্তরের সহযোগিতায় তৃণমূল পরিচালিত খড়্গপুর পুরসভা নিরবচ্ছিন্নভাবে উন্নয়নের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। শাসক দলের বিধায়ক না থাকার সুযোগ নিয়ে রেল যেভাবে পুরসভাকে একের পর এক বাধা দিচ্ছে তা কাটিয়ে উঠতেই উন্নয়নমুখী বিধায়ক চাইছেন খড়্গপুরের মানুষ। যিনি তাঁদের কাজ করবেন। বৃহস্পতিবার দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে দলের ইস্তেহার প্রকাশ করে এই বার্তা দেন দলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পর্যবেক্ষক ও মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।
এদিন বিকেলে প্রার্থীকে নিয়ে পায়ে হেঁটে মালঞ্চ, খরিদা, নিমপুরা, জয়হিন্দ নগরে প্রচার সারেন। পথ চলতি মানুষজনকে তৃণমূল প্রার্থীকে জয়ী করে বিধানসভায় পাঠিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির উন্নয়নমূলক কর্মসূচিকে আরও প্রসারিত করার আবেদন জানান। এদিন বহু তৃণমূল কর্মী সমর্থক পরিবহণ মন্ত্রীর মিছিলে পা মেলান। ৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে চলা এই মিছিল যতই এগিয়েছে ততই মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। খড়্গপুরের ৮টি ওয়ার্ডের বেশ কিছুটা করে অংশ রেলের অধীনে। এরফলে রেল সেসব এলাকায় বসবাসকারী মানুষজনের জন্য খড়্গপুর পুরসভাকে উন্নয়ন করতে বাধা দিয়ে আসছে। টানা ৫০ বছর খড়্গপুরের বিধায়ক ছিলেন প্রয়াত কংগ্রেস নেতা জ্ঞান সিং সোহনপাল। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তাঁকে হারিয়ে বিধায়ক হন বিজেপি–‌র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ৩ বছর বিধায়ক থাকাকালীন তিনি কোনও উন্নয়নমূলক কাজই করেননি। তাঁর বিধায়ক তহবিলের টাকাও অর্ধেক খরচ করতে পারেননি। অভিযোগ, দিলীপবাবু বিধায়ক ও সাংসদ হিসেবে  বরাবরই তৃণমূল পরিচালিত খড়্গপুর পুরসভার সঙ্গে অসহযোগিতা করে এসেছেন। রেলকে দিয়ে উন্নয়ন কাজে বাধার সৃষ্টি করেছেন।
বৃহস্পতিবার খড়্গপুরে ইস্তেহার প্রকাশ করে শুভেন্দু জানান, ‌বিজেপি বিভেদের রাজনীতি করে। রামের সঙ্গে রহিমের সঙ্ঘাত বাধানোর রাজনীতি করে। সমাজকে পিছিয়ে নিয়ে যাওয়ার রাজনীতি করে। আর তৃণমূল শুধুই মানুষের জন্য উন্নয়নের রাজনীতি করে। মানুষের উন্নয়নের কথা ভাবে।  উপনির্বাচনকে পাখির চোখ করে ইতিমধ্যেই বাড়ি বাড়ি প্রচার, বুথসভা, মিছিল করে প্রচারে বেশ কয়েক কদম এগিয়ে গেছেন তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার। ২০১৫ সাল থেকে খড়্গপুর পুরসভার পুরপ্রধান রয়েছেন প্রদীপ সরকার।

 

খড়্গপুরে তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকারকে নিয়ে প্রচারে মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বৃহস্পতিবার। ছবি:‌ স্বরূপ মণ্ডল‌
 

জনপ্রিয়

Back To Top