উদয় বসু: তৃণমূলের একনিষ্ঠ কর্মী পরিতোষ দাস। বুধবার রাতে সোদপুর ট্রাফিক মোড়ের কাছে তিনি গুলিবিদ্ধ হন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন। মুহূর্তের মধ্যে এ খবর ছড়িয়ে পড়তে ক্ষোভে ফেটে পড়েন তৃণমূল কর্মীরা। তাঁরা পুলিশের কাছে অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন। প্রোমোটিংয়ের কাজ করেন পরিতোষ। ইমারতি দ্রব্যের জোগানও দিয়ে থাকেন। পরিতোষের বাড়ি সোদপুর ঘোলা পূর্বপল্লীতে। বুধবার রাত ১১টা নাগাদ তিনি মেয়ের জন্য মিষ্টি কিনতে সোদপুর ট্রাফিক মোড়ে আসেন। একটি মিষ্টির দোকানে দাঁড়িয়ে মিষ্টি কেনার সময় আচমকা দুটো বাইকে করে দুষ্কৃতীরা আসে। পেছন থেকে পরপর দুটি গুলি করে। স্থানীয়দের দাবি, মোট ৫ রাউন্ড গুলি চলে। প্রোমোটারের হাতের নিচে ও কোমরে গুলি লাগে। পুলিশের টহলদারি ভ্যান ধাওয়া করলে দুষ্কৃতীরা টিটাগড়ের দিকে পালিয়ে যায়। হকচকিয়ে যান পথচলতি মানুষ। ভয় পেয়ে যান ব্যবসায়ীরা। দ্রুত দোকানপাট বন্ধ হতে থাকে। এলাকার মানুষই রক্তাক্ত পরিতোষকে তুলে নিয়ে যান হাসপাতালে। তৃণমূল নেতা কমল দাস জানান, দুটি বাইকে ২ জন দুষ্কৃতী এসেছিল। ব্যবসা সংক্রান্ত শত্রুতা থেকে পরিতোষকে খুনের চেষ্টা করা হয়েছে। আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন পরিতোষের পরিবার। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

জনপ্রিয়

Back To Top