‌গৌতম মণ্ডল, পাথরপ্রতিমা: ধান সেদ্ধ করার সময় বয়লার ফেটে মারাত্মক জখম গৃহবধূ ও এক শিশু। শুক্রবার সকালে পাথরপ্রতিমা গঞ্জেরবাজার শিবপুরের ঘটনা। জখম বধূ অর্চনা আড়ি ও শিশু সুস্মিতা দাসকে ডায়মন্ড হারবার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। ৭০ শতাংশের বেশি পুড়ে গিয়েছে শিশুটির শরীর।
স্থানীয় পঞ্চানন আড়ি দীর্ঘ তিন বৎসর যাবৎ বাড়িতে চালের ব্যবসা করেন। বাজার থেকে ধান নিয়ে এসে সেদ্ধ করার পর চাল তৈরি করেন। সেই মতো বাড়িতে উন্নত প্রযুক্তিতে ধানসেদ্ধ করার জন্য একটি বয়লার সেট বসান। সেই বয়লার সেটে ধানসেদ্ধ করছিলেন পঞ্চানন ও তঁার স্ত্রী অর্চনা। পাশে খেলা করছিল প্রতিবেশী সাত বছরের  শিশুকন্যা সুস্মিতা। হঠাৎ ফুটন্ত জলের ড্রামটি বিকট আওয়াজ করে ফেটে যায়। ফেটে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গরম জল এসে পড়ে অর্চনা ও ওই শিশুটির গায়ে। চিৎকার–চেঁচামেচিতে বাড়ির লোকজন ছুটে এসে গায়ে ঠান্ডা জল দেয়। দু’‌জনেই গরম জলে দগ্ধ হয়ে যায়। দেহের প্রায় ৭০ শতাংশের বেশি মারাত্মকভাবে পুড়ে যায়। তৎক্ষণাৎ গদামথুরা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আনা হলে ডায়মন্ডহারবার হাসপাতালে তাদের স্থানান্তরিত করা হয়। এখন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে দু’‌জন।‌‌

মায়ের কোলে জখম শিশু । ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top