‌‌স্বদেশ ভট্টাচার্য: বিপাকে বিজেপি। এবার বিজেপি কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে পথে নামলেন মানুষ। কাটমানি ফেরত এবং ঘরের দাবিতে বসিরহাট পুরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষ মিছিল করে বুধবার বিজেপি কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে স্মারকলিপি দিলেন থানায়। বুধবার বিকালে এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ায়। 
কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বসিরহাট পুরসভার বিজেপি কাউন্সিলর তপন দেবনাথের বিরুদ্ধে। তঁার নামে  পোস্টারও পড়েছে ওয়ার্ডে। তঁার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় বিজেপি নেতা–সহ ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের একাংশ। তপন দেবনাথের বিরুদ্ধে অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ৩,৬৮,০০০ টাকার বাড়ি ২,৫০,০০০ টাকার মধ্যে তৈরি করা হচ্ছে। এদিন বিক্ষোভকারীরা দাবি করেন, সরকারি প্রকল্পে ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে বিজেপি কাউন্সিলর তপন দেবনাথ কারও কাছ থেকে ৩০ হাজার, কারও কাছ থেকে ৩৫–‌৮০ হাজার পর্যন্ত টাকা নিয়েছেন। চেকবই, ব্যাঙ্কের পাশ বই নিজের কাছে রেখে দিয়েছেন। বিক্ষোভকারীদের পক্ষে থানায় যে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে, সেখানে উপভোক্তাদের নাম ও ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে।
এদিন বিকেলে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড থেকে শতাধিক মহিলা, পুরুষ ব্যানার নিয়ে কাটমানি ফেরতের দাবিতে মিছিল করে স্লোগান দিতে দিতে বসিরহাট থানায় যান। সেখানে থানা আধিকারিকের হাতে বিজেপি কাউন্সিলর তপন দেবনাথের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে স্মারকলিপি জমা দেন তঁারা। উপভোক্তা চিত্তরঞ্জন পালিত বলেন, ‘ঘর দেওয়ার নাম করে কাটমানি বাবদ কয়েক হাজার টাকা দেওয়ার পরও ঘর পাওয়া যায়নি। তাই কাটমানি ফেরতের পাশাপাশি গরিব মানুষের ঘর চাই।’ এই ঘটনা তৃণমূলের চক্রান্ত বলে দাবি করেছেন তপন দেবনাথ। তিনি বলেন, ‘‌এই অভিযোগের কোনও ভিত্তি নেই। যঁারা আমার বিরুদ্ধে এ সব কথা বলছেন, তঁারা বিজেপি–র ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চাইছেন। আসলে তঁারা বিজেপি–র কেউ নন। বিজেপি–র মুখোশধারী তৃণমূলের লোক।’ এই অভিযোগ প্রসঙ্গে তৃণমূলের বসিরহাট দক্ষিণ কেন্দ্রের বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস বলেন, ‘আমরা এখন এলাকার উন্নয়ন নিয়ে ব্যস্ত। আমাদের এতো সময় নেই যে, বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে পোস্টার মারব। ওদের দলের লোকেরাই ওদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হচ্ছেন।’ ‌

জনপ্রিয়

Back To Top