অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায়, মল্লারপুর: মল্লারপুরের এক বিজেপি নেতাকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। বিস্ফোরক মজুত করা, সাম্প্রদায়িক উসকানি–সহ একাধিক অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার রাতে জেলা বিজেপি–র সাধারণ সম্পাদক অতনু চ্যাটার্জিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
ময়ূরেশ্বরে তৃণমূল পার্টি অফিসে ভাঙচুরে মদত দেওয়া, খুনের চেষ্টা, উসকানিমূলক বক্তৃতা, বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার–সহ একাধিক অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার রাতে নলহাটি থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বীরভূম জেলা বিজেপি–র নেতা তথা দলের রাজ্য যুব মোর্চার অন্যতম সহ–সভাপতি ধ্রুব সাহাকে। এরপর সোমবার গভীর রাতে মল্লারপুরে জেলা বিজেপি–র সাধারণ সম্পাদক অতনু চ্যাটার্জিকে গ্রেপ্তারের করে পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কিছুদিন আগে মল্লারপুরে একটি ক্লাবে বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে অতনুর বিরুদ্ধে। একই সঙ্গে ময়ূরেশ্বর, সিউড়ি, নানুর ও শান্তিনিকেতন থানাতেও বিভিন্ন মামলায় একাধিক ধারায় অভিযুক্ত হিসেবে নাম রয়েছে এই বিজেপি নেতার। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় রুজু হওয়া একাধিক মামলায় ১৪৭, ১৪৮, ১৪৯, ৩০৭, ৩২৫, ৩২৬, ৪২৭, ৪৩৫, ৫০৬, ১২০–বি আইপিসি এবং ২৫/২৭ আর্মস অ্যাক্ট ও ৩/৪ ইএস অ্যাক্টে অভিযোগ রয়েছে। অতনুকে মঙ্গলবার রামপুরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন। গ্রেপ্তারের পর এদিন সকালে মল্লারপুর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা। বিজেপি–র জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল দাবি করেন, ‘‌নানুরে ও লাভপুরে দলীয় কর্মী খুনের তৈরি হওয়া আন্দোলন আটকাতে পুলিশ আমাদের নেতা–কর্মীদের গ্রেপ্তার করছে।’‌ তৃণমূল জেলা নেতৃত্বের দাবি, ‘‌গুরুতর ফৌজদারি অপরাধের ভিত্তিতেই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে ২ বিজেপি নেতাকে।’‌‌‌

সেদিন ‌বিস্ফোরণে উড়ে যাওয়া ক্লাবঘরটি। পাশে ঘটনায় ধৃত অতনু চ্যাটার্জি। ছবি:‌ আরিফউদ্দিন আহমেদ

জনপ্রিয়

Back To Top