আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল পড়শি যুবক। ঘরে স্ত্রী, তিন সন্তান থাকার পরেও চালিয়েছিল নির্যাতন। প্রতিশোধ নিতে অভিযুক্তর পরিবারের ৬ জনকে কাস্তে দিয়ে কুপিয়ে খুন করল বাবা। নিহতদের মধ্যে রয়েছে অভিযুক্তের ৬ মাস এবং ২ বছর বয়সি দুই শিশু সন্তান। ঘটনা ভাইজাগের পেন্ডুরথির।
খুনের ঘটনায় অভিযুক্তের নাম আপ্পালারাজু। বয়স ৪৯। ২০১৮ সালে তার মেয়েকে ধর্ষণ করে পড়শি যুবক। ৩৩ বছরের ওই যুবকের তিনটি সন্তান এবং স্ত্রী রয়েছে। ধর্ষণের পর থেকে অভিযুক্তের পরিবার ওই পাড়া ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। দিন কয়েক আগে জামিনে ছাড়া পায় সে। বৃহস্পতিবার ওই যুবক বাড়ির বাইরে গিয়েছিল। সঙ্গে ছিল তার বড় ছেলে। 
সে সময়ই যুবকের বর্তমান বাড়িতে চড়াও হয় আপ্পালারাজু। ওই যুবকের স্ত্রী, দুই শিশু সন্তান, বাবা, শাশুড়ি এবং এক আত্মীয়কে কুপিয়ে খুন করে সে। পুলিশ তদন্তে নেমে বুঝতে পারে, অতীতে কোনও শত্রুতার জেরেই খুন। তখনই তদন্ত করে গ্রেপ্তার করে আপ্পালারাজুকে। 
ভাইজাগেই মিথিলাপুরী কলোনিতে একটি বাড়িতে একই পরিবারের চার জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। বাবা–মা ও দুই ছেলে। সুঙ্কারি বাঙ্গারু নাইডু (‌৫১)‌ বাহরিনে চাকরি করতেন। মাস কয়েক আগে দেশে ফিরেছেন। তাঁর স্ত্রী নির্মলা, দুই ছেলে কাশ্যপ (‌২৯)‌, দীপকের (‌১৯)‌ দেহ উদ্ধার হয়েছে। মা, বাবা ও ছোট ছেলের দেহে আঘাতের চিহ্ন মিলেছে। পুলিশের অনুমান, বচসার জেরে বড় ছেলে বাকি তিন জনকে খুন করে পালাতে যাচ্ছিল। বাড়িতে আগুন ধরায় সে। তাতেই মৃত্যু হয় তাঁরও। 
 

Back To Top