সংবাদ সংস্থা, দিল্লি: ক্রিকেট খেলবেন, মুম্বইয়ের হয়ে ২২ গজে লড়বেন— দু’‌চোখে স্বপ্ন ছিল। সেই স্বপ্ন পূরণের আশাতেই উত্তরপ্রদেশের ভাদোই থেকে বাণিজ্য নগরীতে পাড়ি দেওয়া। সেই তিনি খেলবেন অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ভারতের হয়ে। যশস্বী জয়সওয়াল। তাঁর জীবনের গল্পটা অবশ্য এত সহজ নয়। তাঁবুতে রাত কাটিয়ে, ফুচকা বিক্রি করে দিন কেটেছে। কীভাবে এত কঠিন লড়াইয়ের পরও ক্রিকেটের প্রতি ভালবাসাটা অক্ষুণ্ণ আছে?‌ জানালেন যশস্বী নিজেই। 
একটি সর্বভারতীয় দৈনিকে যশস্বী বলেছেন, ‘‌ক্রিকেট খেলতে ছোট থেকেই ভালবাসি। শচীন স্যরের ব্যাটিং সব সময় খুঁটিয়ে দেখি। শচীন স্যরকে দেখেই তো মুম্বইয়ের হয়ে খেলার ইচ্ছে হয়েছিল।’‌ 
বিজয় হাজারে ট্রফিতে সম্প্রতি মুম্বইয়ের হয়ে ২০৩ রান করেছিলেন। ১৫৪ বলে। ইনিংসে ছিল ১২টা ছয়, ১৭টা চার। গত তিন বছর ধরে মুসলিম ইউনাইটেড স্পোর্টস ক্লাব সংলগ্ন অঞ্চলে তাঁবুতে থাকেন যশস্বী। আজাদ ময়দানের কাছে ফুচকা আর ফল বিক্রি করেন। কিন্তু তাতে আর কতটুকুই বা হাতে আসে?‌ একসময় যশস্বীর বাবা তো ছেলেকে গ্রামের বাড়িতে ফিরে যেতেও বলেছিলেন। কিন্তু যশস্বী রাজি হননি। বলেছেন, ‘‌তাঁবুতে থাকাটা সহজ নয়। আলো নেই। বাথরুমও নেই। গ্রীষ্মে প্রচণ্ড গরমে কষ্ট হয়। বর্ষার দিনে জল ঢুকে যায় তাঁবুতে। পরিবারের কাছ থেকেও খুব বেশি আর্থিক সাহায্য পাইনি। তাই বিকেলবেলায় ফুচকা বিক্রি শুরু করি।’‌ যশস্বীর কথায়, ‘‌যাদের সঙ্গে খেলতাম, সেই বন্ধুরা যখন আমার দোকানে ফুচকা খেতে আসত লজ্জায় পড়ে যেতাম। কিন্তু কিছু করার ছিল না। কাজটা করতেই হত।’‌ কিন্তু এত কষ্টের পরও যশস্বীর ক্রিকেট প্রেম অটুট। স্বপ্ন দেখছেন বিশ্বকাপে ভাল খেলার। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top