উৎপল চ্যাটার্জি—  আসন্ন বিশ্বকাপে আমার অন্যতম ফেবারিট দল হল ইওয়িন মর্গানের ইংল্যান্ডের। শুধু ফেবারিট নয়। এবারের বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম দাবিদারও বটে। দুরন্ত ছন্দে রয়েছে ইংল্যান্ড। দলের ভারসাম্য দেখার মতো। প্রতিটি বিভাগেই রয়েছে বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটারেরা।
কেন ইংল্যান্ড খেতাব জেতার অন্যতম দাবিদার? কারণ, ইংল্যান্ড এবার বিশ্বকাপ নিজেদের মাঠে খেলবে। সম্প্রতি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজে খুব ভাল খেলেছে। বেশ কিছু দিন যাবৎ ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা নিজেদের মাঠে খেলার মধ্যে রয়েছে। পরিবেশ, পিচ এবং আবহাওয়া পরিচিত। দলটা ব্যালান্সড। স্টোকস, মইন আলি, কুরানের মতো অলরাউন্ডার রয়েছে। ব্যাটিং গভীরতাও বেশি। জো রুট, জেসন রয়, বাটলার, মর্গানের মতো ব্যাটসম্যান রয়েছে। তবে জোরে বোলিংয়ের জায়গাটি খানিকটা দুর্বল। স্লগ ওভারে খামতি রয়েছে ইংল্যান্ডের। জোফ্রে আর্চার ছাড়া আমি তো আর কোনও বোলার দেখছি না যে দাগ কাটতে পারে। দেখাই গেছে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অথবা পাকিস্তান সহজেই ৩০০–‌র বেশি রান ওদের বিরুদ্ধে করেছে। এটাই একমাত্র ইংল্যান্ডের চিন্তার বিষয়। এই জায়গার দুর্বলতা কাটিয়ে দিতে পারলে ইংল্যান্ড কিন্তু অপরাজেয় হয়ে উঠতে পারে।
ইংল্যান্ডের সব থেকে শক্তি হল ব্যাটিং বিভাগে। ব্যাটিং বিভাগের গভীরতা দেখার মতো। পাশাপাশি নিজেদের পরিচিত মাঠের খেলার সবরকম সুবিধে পেতে বাধ্য ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানেরা। ওরা জানে এমন সময়ে ঘরের মাঠের পিচ কীরকম ব্যবহার করতে পারে। সেই সুবিধে পুরোপুরি পাবে মর্গানরা। এ প্রসঙ্গে বলতে চাই, আমাদের দেশে আইপিএল খেলে যায় বাইরের ক্রিকেটােররা। বাইরের ক্রিকেটারদের আইপিএল খেলার সময়ে ভারতের বিভিন্ন পিচ কীরকম ব্যবহার করতে পারে সে সম্পর্কে একটা ধারণা তৈরি হয়ে গেছে। সেজন্য এখন আইপিএলের সময় অর্থাৎ এপ্রিল–মে মাসে বাইরের ক্রিকেটারেরা সফল হয়। ইংল্যান্ডের বিষয় সম্পূর্ণ আলাদা। ওখানে বাইরে থেকে অনেকেই কাউন্টি খেলতে যায়। কিন্তু খুব একটা ইংল্যান্ডের পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন হতে পারে না। সেজন্য ইংল্যান্ডের নিজেদের ব্যাটসম্যানরা যতটা সুবিধে পাবে তত সুবিধে বাইরের দেশের ব্যাটসম্যানরা পাবে না।
দেখা যাক। প্রত্যেক দলের কাছে কঠিন বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ড তা সত্ত্বেও দাবিদার। আবারও বলছি ব্যাটসম্যানদের ভাল ফর্মে থাকার কারণেই। ইংল্যান্ড আগে ব্যাট করলে অনেক বেশি রান তুলে দিতে পারবে। প্রত্যেকটি ব্যাটসম্যান রান করছে। সবচেয়ে বড় কথা ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডাররা দলের রান আরও বাড়িয়ে দিতে সাহায্য করছে। তিন অলরাউন্ডারই ফর্মে রয়েছে। ভারতীয় দল ফেবারিট কেন? সেই অলরাউন্ডারদের জন্যই। ঠিক সেরকমই ইংল্যান্ডও ফেবারিটের তালিকায় রয়েছে অলরাউন্ডারদের দাপটের জন্যই।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top