সংবাদ সংস্থা
৩১ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে লকডাউনের সময়সীমা। তবে, কেন্দ্রীয় সরকার এই চতুর্থ দফার লকডাউনে বেশ কিছু ছাড় দিয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে স্টেডিয়াম ও স্পোর্টস কমপ্লেক্স খোলার অনুমতি। অবশ্য সেখানে আপাতত দর্শকদের প্রবেশাধিকার থাকবে না।
কেন্দ্রীয় সরকারের এই নির্দেশিকা জারি হওয়ার পরেই ভারতের ক্রীড়ামহলে সবার আগে যে প্রশ্নটা উঠেছে, সেটা হল আইপিএল কি হবে?‌ এই ব্যাপারে এখনই কোনও তাড়াহুড়োয় যেতে রাজি নয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলা হতে পারে জেনেও এখনই আইপিএল নিয়ে কিছু ভাবছে না সৌরভ গাঙ্গুলি পরিচালিত ভারতীয় বোর্ড।
কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন নির্দেশিকার পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয় যে প্রশ্নটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটা হল বিরাট কোহলিরা কি একসঙ্গে অনুশীলন করতে পারবেন?‌ কোহলিদের আন্তর্জাতিক সিরিজ শুরু হওয়ার আগে ভারতীয় বোর্ড চাইছে একটি কন্ডিশনিং ক্যাম্প করতে। লকডাউনের জেরে দীর্ঘদিন খেলাধুলোর বাইরে ভারতীয় ক্রিকেট দল। ফলে এই কন্ডিশনিং ক্যাম্প অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু আইপিএলের মতো কোহলিদের একসঙ্গে অনুশীলনে নামতে দেওয়ার ব্যাপারেও কোনওরকম তাড়াহুড়ো করতে চাইছে না ভারতীয় বোর্ড।  
আপাতত ঠিক হয়েছে, কোহলিদের মতো বোর্ডের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের জন্য এখনই অনুশীলনের কোনও বন্দোবস্ত করছে না বিসিসিআই। বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধুমল সোমবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছেন, ‘এখনও দেশে উড়ান চলার অনুমতি নেই। ৩১ মে পর্যন্ত লকডাউন চলবে। তাই আমাদের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের জন্য এখনই ট্রেনিং ক্যাম্পের ব্যবস্থা করা যাবে না। এর জন্য আমাদের আরও অপেক্ষা করতে হবে। আমরা বিভিন্ন রাজ্য সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করব। হয়তো পরবর্তী ক্ষেত্রে স্থানীয় পর্যায়ে স্কিল–নির্ভর কিছু অনুশীলনে ছাড় দেওয়া যেতে পারে।’ 
বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ আরও জানিেছেন, ‘বোর্ডের শীর্ষকর্তারা নিয়মিত যোগাযোগ রেখেছেন ভারতীয় দলের সঙ্গে। সব কিছু স্বাভাবিক হলে হয়তো কিছু পরিকল্পনা করা হবে ভারতীয় দলের জন্য। এখনই কোনও তাড়াহুড়ো করতে রাজি নই আমরা। দেশ আগে স্বাভাবিক হোক তারপর সব কিছু করা হবে। ক্রিকেটার এবং সাপোর্ট স্টাফদের স্বাস্থের দিকটা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এমন কিছু করব না, যাতে করোনাভাইরাস আরও ছড়িয়ে যায়।’‌‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top