আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক তৈরি করেছে করোনা ভাইরাস। যে কারণে এবার হোম আইসোলেশনে চলে গেলেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।
কিছুদিন আগেই আমেরিকা গিয়েছেন তিনি। সেই জন্যই কোনও ঝুঁকি না নিয়ে নিজের উদ্যোগেই ১৪ দিনের ‘স্বেচ্ছা নির্বাসন’ গ্রহণ করেছেন তিনি। এমনকী মেয়ে ও স্ত্রীর সঙ্গেও দেখা করছেন না। একদিন আগেই ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করে নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানান তিনি। সাকিব বলেন, ‘‌এখানে এসে খানিক বিমান থেকে নামার পর একটু হলেও ভয় করছিল। তাও চেষ্টা করেছি কীভাবে নিজেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন আর জীবাণুমুক্ত রাখা যায়।’‌
সাকিব বলেন, ‘‌আমেরিকায় পা রেখেই সোজা একটি হোটেলে গিয়ে উঠি। হোটেল কর্তৃপক্ষে জানাই আমি এখানে থাকব কিছুদিন। যেহেতু বিমানে এসেছি, একটু হলেও ঝুঁকি আছে আমার। সেই জন্য নিজেকে আইসোলেশনে রেখেছি।’‌ মেয়ের সঙ্গেও দেখা করেননি বর্তমানে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত তারকা। সাকিবের কথায়, ‘‌এই একই কারণে বাচ্চার সঙ্গে দেখা করিনি। এখানে এসেও ওর সঙ্গে দেখা না করাটা আমার জন্য খুব কষ্টকর। তারপরও আমার মনে হয় এই সামান্য ধৈর্য দেখাতে পারলে অনেক দূর এগোতে পারব।’‌
বিদেশ ফেরতদের উদ্দেশে সাকিব বলেন, ‘‌যদি কেউ বিদেশ থেকে ফিরে থাকেন, তাহলে অবশ্যই নিজেকে ঘরে রাখুন। সেই ব্যক্তি ঘর থেকে যাতে বাইরে না বেরোন, সেদিকে খেয়াল রাখুন। একই সঙ্গে আরেকটি ব্যাপার মনে রাখতে হবে, যেন আত্মীয়স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশী এসে আপনার সঙ্গে দেখা করতে না পারেন। ১৪ দিন আপনার ঘরে থাকাটা খুবই জরুরি। যেহেতু আমাদের সময়টা ভাল যাচ্ছে না, আমি সবাইকে অনুরোধ করব, সবাই যেন সব নিয়ম মেনে চলেন। কারণ আমাদের এই সামান্য আত্মত্যাগটুকুই পারে আমাদের পরিবারকে রক্ষা করবে। সুস্থ রাখতে, আমাদের নিজেদেরও সুস্থ থাকতে হবে। আশা করি, আপনারা আমার এই কথাগুলো শুনবেন এবং কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন।’‌ আতঙ্কিত না হতে এবং আতঙ্ক না ছড়ানোর অনুরোধ জানাচ্ছেন অলরাউন্ডার।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top