‌সংবাদ সংস্থা, ফারো (‌পর্তুগাল)‌ ও লন্ডন: দেশের জার্সিতে হ্যাটট্রিক করে মরিসিও সারিকে মুখের ওপর জবাব দিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। জুভেন্টাস কোচ এবং রোনাল্ডোর সম্পর্ক নিয়ে গত কয়েকদিনে অনেক চর্চাই হয়েছে। সারির অভিযোগ ছিল, রোনাল্ডোর নাকি চোট রয়েছে। কিন্তু বৃহস্পতিবার রাতের পারফরমেন্স একেবারে সপাটে প্রত্যুত্তর। রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিকে ইউরোর যোগ্যতা অর্জন পর্বে লিথুয়ানিয়াকে হাফ ডজন গোলে উড়িয়ে দিল পর্তুগাল। ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হ্যারি কেনও এদিন হ্যাটট্রিক করেছেন।
সাত মিনিটেই পেনাল্টি থেকে পর্তুগালকে এগিয়ে দেন রোনাল্ডো। প্রথমার্ধের মাঝামাঝি সময়ে দূর থেকে দুরন্ত বাঁকানো শটে ব্যবধান বাড়ান। দ্বিতীয়ার্ধে সাত মিনিটের মধ্যে গোল করেন পিজ্জি। গনসালো পাসিয়েনসিয়া এবং বার্নার্ডো সিলভার গোলে ৫৬ মিনিটেই ৫–০ ব্যবধানে এগোয় পর্তুগাল। রোনাল্ডো নিজের হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করেন ৬৩ মিনিটে। কেরিয়ারে ৫৫টি আন্তর্জাতিক হ্যাটট্রিক হয়ে গেল রোনাল্ডোর, ফুটবল–ইতিহাসে সর্বোচ্চ। দেশের হয়েই ৮টা হ্যাটট্রিক রয়েছে। পাশাপাশি, বিশ্বের দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে শততম থেকে আর ২ গোল দূরে পর্তুগিজ অধিনায়ক। প্রিয় তারকার সঙ্গে সেলফি তুলতে মাঠে একাধিকবার ঢুকে পড়েন সমর্থকরা। রোনাল্ডো হাসিমুখেই সবার আবদার মিটিয়েছেন। ম্যাচ শেষের পর কোচ ফার্নান্ডো স্যান্টোসকে গিয়ে জড়িয়ে ধরেন। তাঁদের সম্পর্ক কতটা ভাল এটা দেখিয়ে রোনাল্ডো সারিকেই বার্তা দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।
স্যান্টোস ভূয়সী প্রশংসা করেছেন রোনাল্ডোর। বলেছেন, ‘‌ওকে একদম সুস্থ লেগেছে, কোনও সন্দেহ নেই এটা নিয়ে। অনেকের হয়তো সন্দেহ ছিল। আমার নেই।’‌ ডিফেন্ডার ব্রুনো ফার্নান্ডেজের কথায়, ‘‌রোনাল্ডোকে আজ অনেক বেশি উজ্জীবিত লাগল। তিনটে গোল করেছে যেটা ওর কাছে খুবই স্বাভাবিক।’‌ রবিবার লুক্সেমবুর্গকে হারালে ইউরোর যোগ্যতা অর্জন করবে পর্তুগাল।
হ্যারি হ্যাটট্রিক করলেও ইংল্যান্ড ম্যাচে এড়ানো গেল না জো গোমেজ বনাম রাহিম স্টারলিং বিতর্ক। গোমেজ মাঠে নামামাত্র তাঁকে ব্যঙ্গাত্মক শিসে ভরিয়ে দেন ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামের সমর্থকরা। যার কড়া নিন্দা করেছেন স্টারলিং নিজে এবং কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। ম্যাচের পরেই স্টারলিং টুইটারে লেখেন, ‘‌ভেবেছিলাম আর কিছু বলব না। কিন্তু আজ যা হল তার জন্য আরেকবার মুখ খুলতেই হচ্ছে। আমার দোষের জন্য একজন সতীর্থকে ব্যঙ্গ করা হচ্ছে এটা দেখে খুব খারাপ লাগল। জো কোনও ভুল করেনি। সপ্তাহটা ওর কাছে খুব কঠিন গিয়েছে। একজন সতীর্থ যখন ভাল খেলেও মাথা নিচু করে বেরোচ্ছে সেটা দেখে কারোরই ভাল লাগবে না। গোটা ঘটনার দায় আমি ইতিমধ্যেই মাথা পেতে নিয়েছি।’‌ সাউথগেট বলেছেন, ‘‌ড্রেসিংরুমের প্রত্যেকে এই ঘটনায় হতাশ। কোনও ইংরেজ ফুটবলারকেই শিস দেওয়া উচিত নয়। খেলোয়াড়রা এতে আরও হতাশ হয়ে পড়ে। সমর্থকদের এই আচরণে আমি নিজেও হতাশ।’‌
এদিন ১০০০ তম ম্যাচ খেলতে নেমেছিল ইংল্যান্ড। পল গাসকোয়েন, ওয়েন রুনি–সহ অনেক প্রাক্তন তারকাকে আমন্ত্রণ করা হয়। ম্যাচের আগে তাঁরা মাঠ প্রদক্ষিণ করেন। ৭–০ ব্যবধানে মন্টেনেগ্রোকে উড়িয়ে হাজারতম ম্যাচ স্মরণীয় করে রাখল ইংল্যান্ড। হ্যাটট্রিকের ফলে দেশের জার্সিতে ৩১ গোল হল হ্যারির। পেরিয়ে গেলেন অ্যালান শিয়েরারকে। বাকি গোলগুলি অ্যালেক্স অক্সলেড–চেম্বারলেন, মার্কাস র‌্যাশফোর্ড, ট্যামি আব্রাহাম এবং আলেকজান্দার সফ্রানাচের আত্মঘাতী।‌

হ্যাটট্রিকের হাসি রোনাল্ডোর। বৃহস্পতিবার ফারোতে। ছবি: এএফপি

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top