‌সংবাদ সংস্থা, লন্ডন: আদৌ কি কোনও চোট রয়েছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর?‌ জল্পনা আরও ঘনীভূত হল তাঁর এক সতীর্থের মন্তব্যে। দেশের হয়ে ইউরোর যোগ্যতা অর্জন পর্বের ম্যাচ খেলতে জাতীয় ক্যাম্পে রয়েছেন রোনাল্ডো। সেখানেই এক পর্তুগিজ সংবাদপত্রে তাঁর সতীর্থ গনসালো পাসিয়েনসিয়া বলেছেন, রোনাল্ডোর নাকি কোনও চোটই নেই। তাঁর কথায়, ‘‌আমার ডাক্তারিতে কোনও ডিগ্রি নেই। কিন্তু রোনাল্ডোকে অনুশীলনে দেখে সুস্থ, স্বাভাবিকই মনে হয়েছে। ও এখানে থাকার সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কারণ ও বিশ্বের সেরা ফুটবলার।’‌
পাসিয়েনসিয়া একথা বলার পর মনে করা হচ্ছে যে, সত্যি সত্যিই জুভেন্টাস কোচ মরিসিও সারির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে রোনাল্ডোর। সতীর্থদের সঙ্গে দেখা না করে ম্যাচ শেষের আগেই বাড়ি চলে আসা এমনিতেই ভাল চোখে দেখছে না জুভেন্টাস ম্যানেজমেন্ট। রোনাল্ডোকে এদিন অনুশীলনে যথেষ্টই ফুরফুরে দেখিয়েছে। আগের ম্যাচে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে হেরে গিয়েছে পর্তুগাল। গ্রুপ বি–তে তাদের ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে সার্বিয়া। তবে পর্তুগালের পক্ষে বিশেষ চিন্তার কারণ নেই। যোগ্যতা অর্জন পর্বে তাদের দুই প্রতিপক্ষ গ্রুপের নিচে থাকা দুই দল লিথুয়ানিয়া এবং লুক্সেমবুর্গ। ফলে, রোনাল্ডোরা এই দুটি ম্যাচ জিতলেই ইউরোর টিকিট আদায় করে ফেলবেন।
ইংল্যান্ড শিবিরে অবশ্য এখনও রাহিম স্টারলিং এবং জো গোমেজের মারপিট নিয়ে উত্তাপ জারি রয়েছে। ‌তবে বাইরে থেকে তা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন প্রত্যেকেই। বুধবার দু’‌জনকেই দেখা গেল হাসিমুখে একসঙ্গে অনুশীলন করতে। কোচ গ্যারেথ সাউথগেটও মজা করলেন দলের ফুটবলারদের সঙ্গে। তবে তাঁকে নিয়েই সবথেকে বেশি চর্চা হচ্ছে।
স্টারলিংকে বাদ দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন ওঠে বারবার। ইংল্যান্ডের এক সংবাদপত্রের দাবি, কেন দলের সেরা তারকাকে বাদ দেওয়া হল তা নিয়ে টিম মিটিংয়ে একাধিক প্রশ্নের মুখে পড়েন সাউথগেট। তথ্য বলছে, যোগ্যতা অর্জন পর্বে ইংল্যান্ডের সবথেকে সক্রিয় ফুটবলার স্টারলিংই। দলের ২৬টা গোলের মধ্যে ৮টাই তাঁর। বিশ্বকাপে ছন্দে না থাকলেও তারপর থেকে স্টারলিং দেশের হয়ে নিজের সেরা ফর্মেই রয়েছেন। এরকম ফুটবলারকে কেন বাদ দেওয়া হল, তা নিয়ে দলও দু’‌ভাগ হয়ে গিয়েছে। এর আগে বারবার দলের মধ্যে বিভাজন নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন ইংল্যান্ডের প্রাক্তন কোচেরা। সাউথগেট এসে সেটা নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন। কিন্তু এই ঘটনা তাঁকেও বেশ সমস্যার মধ্যে ফেলে দিয়েছে। রিও ফার্দিনান্দ এবং গ্যারি নেভিলের মতো প্রাক্তন ফুটবলাররা তো রীতিমতো সরব। তাঁদের দাবি, ঘটনাটা আরও ভালভাবে সামলাতে পারতেন সাউথগেট।
মন্টেনেগ্রোর বিরুদ্ধে ম্যাচে স্টারলিংকে বাদ দেওয়া প্রসঙ্গে সাউথগেট জানিয়েছেন, তাঁর সিদ্ধান্ত সঠিক। সাউথগেটের বক্তব্য, ‘‌আমি সমস্ত সহকর্মী এবং দলের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছি, ওদের মতামত শুনেছি। কিন্তু দিনের শেষে আমিই দলের কোচ হিসেবে সিদ্ধান্ত নেব। রাহিম আমাদের দলের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার সন্দেহ নেই। কিন্তু আমি যা করেছি সেটাই ঠিক।’‌ তাঁর সংযোজন, ‘‌আমরা একটা পরিবারের মতো। সেখানে দু–একটা মতানৈক্য থাকবেই। সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হল সকলের সঙ্গে কথা বলে যাবতীয় দূরত্ব কমিয়ে নেওয়া।’‌
সাউথগেট দাবি করেন, অনুশীলনে নাকি স্টারলিং এবং গোমেজ একে অপরের সঙ্গে কথা বলে যাবতীয় সমস্যা মিটিয়ে নিয়েছেন। দু’‌জনের মধ্যে আর কোনও বিবাদই নেই!‌ তবে ঠিক কী নিয়ে দুই ফুটবলার মারপিটে জড়িয়ে পড়েছিলেন, তার কোনও ব্যাখ্যা দেননি সাউথগেট। তাঁর কথায়, ‘‌দল কীভাবে এগোবে সেটা খুঁজে বের করাই আমার কাজ। সবাইকেই বলেছি নিজেদের আবেগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে। ফুটবলাররা কীভাবে ভাল থাকবে সেটা দেখাই আমার দায়িত্ব। তাই এটা নিয়ে বেশি চর্চা না করাই ভাল।’‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top