আজকালের প্রতিবেদন: সকাল দেখে সবসময় ঠাহর করা যায় না দিনটা কেমন হতে চলেছে। বৃহস্পতিবারের রাজকোট তার জলজ্যান্ত উদাহরণ।
টস হেরে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লে–র ছয় ওভারের মধ্যে স্কোরবোর্ডে ৫৪ রান তুলে ফেলেছে বাংলাদেশ। শুধু তাই নয়, ততক্ষণে দু–দু’‌বার জীবনও পেয়ে গিয়েছেন ওপেনার লিটন দাস। এবং দুটো ক্ষেত্রেই অদ্ভুতরকম ভাবে ভাগ্য তাঁর প্রতি সহায় ছিল। শতকরা নিরানব্বইবার সময়ে ব্যাটসম্যান নিশ্চিত আউট হবেই। বাকি এক শতাংশটাই এদিন ছিল লিটনের পক্ষে। তবুও সুযোগ কাজে লাগিয়ে তিনি বড় রান করতে পারলেন না। বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডেও শেষপর্যন্ত ১৫৩/‌৬–এর বেশি ওঠেনি।
গত ম্যাচে যেখানে শেষ করেছিলেন, এদিন যেন ঠিক সেখান থেকেই শুরু করেছিলেন খলিল আহমেদ। দিল্লিতে এক ওভারে চারটে বাউন্ডারি দিয়ে ম্যাচ বাংলাদেশের হাতে তুলে দিয়েছিলেন এই পেসার। এদিনও রাজকোটে নিজের প্রথম ওভারে তিনটি বাউন্ডারি দিয়ে শুরু করলেন। ম্যাচে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রানও খরচ করেছেন এই বাঁহাতি পেসার। শেষবেলায় আফিফ হোসেনের উইকেট পেয়েছেন ঠিকই, তবে ৪ ওভারে ৪৪ রান দিয়েছেন।
ঘটনার ঘনঘটার রাজকোটে চর্চার কেন্দ্রে অবশ্য সেই ঋষভ পন্থ। একটা অদৃশ্য চাপ যে এই তরুণ উইকেটকিপারের ওপর রয়েছে, সেটা মাঠে ওর পারফরমেন্সেই স্পষ্টত ফুটে উঠছে। নতুন বল হাতে খলিল প্রত্যাশামতো শুরু করতে না পারায় ম্যাচের চতুর্থ ওভারে তাঁকে সরিয়ে ওয়াশিংটন সুন্দরকে আক্রমণে আনেন রোহিত। তাতেও কাজ না হওয়ায় ষষ্ঠ ওভারে বল তুলে দেন যুজবেন্দ্র চাহালের হাতে। ওভারের তৃতীয় বলে স্টেপ আউট করতে গিয়ে লাইন মিস করে স্টাম্পড হন লিটন। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায় ঋষভ উইকেটের আগেই বল ধরে ফেলেছেন। ড্রেসিংরুমের দোরগোড়া থেকে লিটনকে মাঠে ফিরিয়ে আনেন তৃতীয় আম্পায়ার অনিল চৌধুরি। পরে সৌম্য সরকারের ক্ষেত্রেও কার্যত একই ছবির পুনরাবৃত্তি দেখা যাচ্ছিল। সৌম্যর সময় তৃতীয় আম্পায়ার প্রথমে নট–আউট দেখিয়েও ফেলেছিলেন। পরক্ষণেই ভুল শুধরে নেওয়ায় ঋষভের মুখে চাপমুক্তির হাসি।
ঋষভ নিয়ে ইনিংস বিরতিতে আলোচনায় ভিভিএস লক্ষ্মণও বলে গেলেন, ‘‌বল হাতে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। এটাই উইকেটকিপিং স্কিল। কিন্তু ঋষভ দেখছি প্রতিবার বলের কাছে হাত নিয়ে যাচ্ছে।’‌ গত ম্যাচের দল অপরিবর্তিত রাখার কারণ হিসেবে এদিন টসের সময় শততম আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচ খেলতে নামা রোহিত বলছিলেন, ‘কেউ খারাপ পারফর্ম করেছে বলে আমি মনে করি না। গত ম্যাচে আমাদের কিছু ভুল হয়েছিল। দেখতে হবে সেগুলো শুধরে নিতে পেরেছি কিনা। সেটাই গুরুত্বপূর্ণ।’‌ মাঠে নামার সময় ঘিরে থাকা সতীর্থদের উদ্দেশেও সম্ভবত সেই কথাই বলছিলেন। তবে ঋষভের পারফরমেন্স নিয়ে এবার কী বলেন সেটাই দেখার।
স্কোর
বাংলাদেশ:‌ লিটন রান আউট ২৯ (‌২১)‌, নঈম ক শ্রেয়স ব সুন্দর ৩৬ (‌৩১)‌, সৌম্য স্টাঃ ঋষভ ব চাহাল ৩০ (‌২০)‌, মুশফিকুর ক ক্রুনাল ব চাহাল ৪, মাহমুদুল্লা ক শিবম ব দীপক ৩০ (‌২১)‌, আফিফ ক রোহিত ব খলিল ৬ (‌৮)‌, মোসাদ্দেক অপরাজিত ৭ (‌৯)‌, আমিনুল অপরাজিত ৫ (‌৫)‌, অতিরিক্ত ৬, মোট (‌২০ ওভারে ৬ উইকেটে)‌ ১৫৩। উইকেট পতন:‌ ১/‌৬০, ২/‌৮৩, ৩/‌৯৭, ৪/‌১০৩, ৫/‌১২৮, ৬/‌১৪২। বোলিং:‌ দীপক ৪–০–২৫–১, খলিল ৪–০–৪৪–১, সুন্দর ৪–০–২৫–১, চাহাল ৪–০–২৮–২, শিবম ২–০–১২–০, ক্রুনাল ২–০–১৭–০। (‌স্কোর অসম্পূর্ণ)‌

চাহালের দারুণ বোলিং সত্ত্বেও বাংলাদেশের ইনিংসকে টানলেন নঈম। লিটনকে রান আউট করার মুহূর্তে ঋষভ। ছবি: এএফপি, পিটিআই

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top