‌আজকালের প্রতিবেদন: এর আগে আই লিগে অংশ নেওয়া পুনে শহরের ভারত এফসি, পুনে এফসি, ডিএসকে শিবাজিয়ান্স দল তুলে দিয়েছিল। এবার সে পথে হাঁটতে চলেছে আইএসএল ফ্র‌্যাঞ্চাইজি এফসি পুনে সিটি। মূলত আর্থিক সঙ্কটের কারণে এফসি পুনে সিটি নতুন মরশুমে আইএসএল খেলা থেকে সরে আসার ইঙ্গিত দিয়েছে। 
এটা সকলেরই জানা, আইএসএল চালুর পর থেকে ফ্র‌্যাঞ্চাইজিগুলো কোনও লাভের মুখ দেখেনি। বরং আইএসএলের পরিচালন সংস্থা রিলায়েন্স ও এফএসডিএলের মান রাখতে আর্থিক লোকসান সহ্য করেও তারা খেলে চলেছে। তবে এফসি পুনে সিটির পক্ষে সেটা আর করা সম্ভব হবে মনে করছেন না সেই দলের কর্তারা। আইএসএল অনেকদিন আগে শেষ হলেও পুনে কর্তারা ফুটবলারদের মাইনে মেটাতে পারেননি। 
বকেয়া মাইনের দাবিতে ফেডারেশনের দ্বারস্থ হয়েছেন পুনের দুই ফুটবলার ইয়ান হিউম ও আশিক কুরনিয়ান। পুনে কর্তারা ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে হিউম ও কুরনিয়ান ছাড়াও বাকি ফুটবলারদের মাইনে মেটানোর কথা নাকি দিয়েছেন। তবে দল রাখতে আর তাঁরা আগ্রহী নন। দলটাকে বেচে দিতে চাইছেন নতুন কোনও ফ্র‌্যাঞ্চাইজির কাছে। শোনা যাচ্ছে, হায়দরাবাদের এক কোম্পানি দলটা কিনে নিতে পারে। তারাই আইএসএলে পুনের জায়গা নিলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এদিকে, আইলিগে ইউ মুম্বা এফসি–‌কে নেওয়ার জন্য ফেডারেশনের তরফে দরপত্র ছাড়ার কথা ছিল। 
সেই মতো ইউ মুম্বা এফসি ফুটবলার নেওয়ার জন্য ট্রায়াল শুরু করেছিল। কিন্তু ভেতরের খবর, ফেডারেশনের শীর্ষ স্থানীয় এক কর্তা ইউ মুম্বাকে ট্রায়াল স্থগিত রাখার কথা বলেছে। ব্যাপারটা বেশ রহস্যজনক। আইলিগ ক্লাব জোটকে বিশাল পরিমাণ জরিমানা করার পর ভারতীয় ফুটবলের পরিস্থিতি জটিল হতে পারে। তাতেই আপাতত ইউ মুম্বা এফসি–‌কে ফেডারেশন পরিস্থিতির দিকে নজর দেওয়ার কথা বললে আশ্চর্যের কিছু নেই। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top