আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ যাবতীয় জল্পনা অবশেষে সত্যি হল। বিশ্বজুড়ে ক্রীড়ামহলের চাপে পড়ে শেষপর্যন্ত টোকিও অলিম্পিক স্থগিত করতে বাধ্য হল আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি। সোমবার আইওসি’র সদস্য ডিক পাউন্ড এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন। এবছরের অলিম্পিক আগামী ২৪ জুলাই থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের জন্য অলিম্পিক স্থগিত করার আবেদন জানাচ্ছিল একাধিক দেশ। কানাডা তো জানিয়েই দিয়েছিল, তারা দল পাঠাবে না। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বজুড়ে চাপের মুখে গেমস স্থগিত করতে বাধ্য হল আইওসি।
জানা গিয়েছে, অলিম্পিক সম্ভবত আগামী বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে আয়োজন হতে পারে। ডিক পাউন্ড জানিয়েছেন, ‘‌আপাতত নির্ধারিত সময়ে অলিম্পিক শুরু হচ্ছে না। পরবর্তী পদক্ষেপ আইওসি বৈঠকে বসে সিদ্ধান্ত নেবে। তখনই পরবর্তী সূচি ঠিক হবে। তবে সে আশাও কম। কারণ, করোনার জেরে যা পরিস্থিতি তাতে এখন বৈঠকও সম্ভব নয়।’‌ গোটা বিশ্বের ক্রীড়ামহল বেশ কয়েকদিন ধরে চাপ দিচ্ছিল আইওসিকে। যাতে গেমস এবছরের মতো বাতিল করা যায়। কিন্তু স্পনসরদের অনীহায় গেমস বাতিল করার পক্ষে ছিল না আইওসি। তবে কানাডা দল না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিতেই নড়েচড়ে বসে কার্যনির্বাহী কমিটি।
কানাডার পথে হেঁটে সোমবারই অস্ট্রেলিয়া অ্যাথলিটদের না পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়। এরপরই রবিবার অলিম্পিক পিছিয়ে দেওয়ার কথা ভাবনাচিন্তা শুরু করে আইওসি। সভাপতি টমাস বাখ অ্যাথলিটদের চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, গেসম স্থগিত করা কোনও বিকল্প নয়। বরং সিদ্ধান্ত। ক্রীড়াবিদদের শরীর-স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও আইওসি’র সিদ্ধান্ত ঘোষণার অপেক্ষায় ছিল। তারাও চাইছিল অলিম্পিক এবার বাতিল হোক। শেষপর্যন্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আরজি মেনে অলিম্পিক স্থগিত করে দিল আইওসি।

 

‌‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top