আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিসিসিআইয়ের কোভিড–১৯ টাস্কফোর্সের অন্যতম সদস্য হলেন রাহুল দ্রাবিড়। তিনি জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রধানও বটে। 
করোনা সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচার জন্য বিসিসিআই জারি করেছে নির্দেশিকা। যাতে বলা হয়েছে যে ৬০ বছরের বেশি বয়সি, যাঁরা ডায়াবিটিস, ফুসফুসের সমস্যা ও দুর্বল প্রতিরোধ ক্ষমতার সঙ্গে লড়াই করছেন, তাঁরা কোনও শিবিরে যুক্ত থাকতে পারবেন না। কারণ, তাঁদের শরীরে সংক্রমণ সহজেই ছড়াতে পারে। 
রাহুল দ্রাবিড় ছাড়াও এই টাস্কফোর্সে আছেন একজন চিকিৎসক, একজন পুষ্টিবিদ ও বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশনসের এক কর্তা। জানা গেছে ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখবেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা। ক্রিকেটার থেকে কোচ, সাপোর্ট স্টাফদের কী করা উচিত, কোনটা অনুচিত সবটাই বুঝিয়ে দেবেন সদস্যরা। আর ক্রিকেটার সহ কোচ ও সাপোর্ট স্টাফদের অনুশীলনে নামার আগে নির্দেশিকায় চোখ বুলিয়ে হলফনামায় সই করতে হবে।
বোর্ডের তরফে বলা হয়েছে, ‘‌ক্রিকেটার থেকে সাপোর্ট স্টাফ, কোচ এমনকি এনসিএ–তে থাকা ক্রিকেটাকদেরও হলফনামায় সই করতে হবে। অনুশীলনে নামার আগে সুরক্ষিত থাকাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখতে হবে সংশ্লিষ্ট রাজ্য ক্রীড়া সংস্থাকে। কড়া নিয়ম মেনে স্টেডিয়ামে আসতে হবে। যাবতীয় বিধি মেনে চলতে হবে। অনুশীলন শুরু করার আগে ক্রিকেটারদের গত দু’‌সপ্তাহের গতিবিধির কথা জানাতে হবে। অনুশীলন শুরুর দিন ও তৃতীয় দিন করোনা পরীক্ষা হবে। দু’‌বারই নেগেটিভ এলে শিবিরে যোগ দেওয়া যাবে। মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক। স্টেডিয়ামে দর্শক, ক্রিকেটারদের পরিবারের কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। বিশেষ অনুমতিতে কেউ এলেই স্ক্যানিংয়ের পর ক্রিকেটারদের কাছে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে। সারাক্ষণ নাক ও মুখ ঢেকে রাখতে হবে।’‌ 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top