আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিশ্বকাপে ভারতের বিদায়ের পরেই কথা উঠেছে মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসর নিয়ে। শুধু অবসর নয়, উঠে এসেছে একাধিক জল্পনা। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সঞ্জয় পাসওয়ান জানিয়েছেন, ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনের আগেই বিজেপিতে নাম লেখাতে পারেন ধোনি। তাতেই মনে করা হচ্ছে রাজনীতিতে নতুন ইনিংস শুরু করার সম্ভবনা প্রবল হয়েছে ধোনির। অন্যদিকে, ধোনির এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু জানিয়েছেন, টেরিটোরিয়াল আর্মিতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ধোনি। এভাবেই ভবিষ্যতে তিনি দেশের সেবা করতে চান। সম্ভবনার মাঝে এটা মোটামুটি স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে যে ক্রিকেটকে হয়ত দ্রুত বিদায় জানাবেন বিশ্বকাপ জয়ী ভারত অধিনায়ক।
সঞ্জয় পাসওয়ান জানিয়েছেন, ভারতীয় জনতা পার্টির হয়ে ধোনির অংশ নেওয়া এখন সময়ের অপেক্ষা। তাঁর অনেকদিনের ‘‌বন্ধু’‌ ধোনির অবসরের বিষয়টি চূড়ান্ত হলেই বিজেপির হয়ে রাজনীতি শুরু করবেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। অনেকদিন ধরেই আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন এই ক্রিকেটারকে দলে নেওয়ার ব্যপারে কথা চালাচ্ছে বিজেপি। এখন দেখা যাক, ভবিষ্যতে কী হয়।
এর আগে, বিজেপির ‘‌সম্পর্ক সমর্থন’‌ যাত্রার এক গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়েছিলেন ধোনি। দেখা করেছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে। তারপর থেকেই বিজেপি শিবিরে ধোনির যোগ নিয়ে জল্পনা আরও শক্তিশালী হয়। সঞ্জয় আরও জানিয়েছেন, ‘‌ধোনিকে আগামী ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচনে মুখমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবেও তুলে ধরার কথাও আলোচনায় রয়েছে।’‌ 
অন্যদিকে, ধোনির বন্ধু বলেছেন, সেনায় নিজেকে যুক্ত করে দেশের সেবা করতে চাইছেন মাহি। সেই জন্য সিয়াচেনেও কয়েকমাস থাকতে পারেন। এর আগে ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে ধোনিকে সান্মানিক লেফ্টেন্যান্ট কর্নেল করা হয়েছিল। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই ভারতীয় সেনার সঙ্গে ধোনির একটা যোগসূত্র রয়েছে। সেটাকেই আরও মজবুত করতে ইতিমধ্যে সেনাকে নাকি অনুরোধও করে ফেলেছেন ধোনি। কারণ, এর আগে প্যারা রেজিমেন্টের হয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ধোনি। প্যারাজাম্পও দিয়েছেন। কিন্তু ক্রিকেট ছাড়ার পর পুরোপুরি নিজেকে সেনাবাহিনীতে নিযুক্ত করতে চাইছেন তিনি। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top