‌আজকালের প্রতিবেদন: চার্চিল ব্রাদার্সের মুখোমুখি হওয়ার আগেই মাঠের বাইরের ঠান্ডা লড়াইটা বেশ টের পাচ্ছে মোহনবাগান। বৃহস্পতিবার গোয়া পৌঁছে পছন্দের মাঠ পায়নি সবুজ–‌মেরুন ব্রিগেড। অনুশীলন করতে হয় অসমান বাউন্স ভরা মাঠে। অখুশি হলেও তা নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে চাননি বাগানের কোচ ও ফুটবলাররা। ম্যাচের আগের দিন অনুশীলনের মাঠ পেতে আবার সমস্যা হল। সংগঠকরা মোহনবাগানকে সকাল ৯টা থেকে ১০টা, এক ঘণ্টা অনুশীলনের জন্য মাঠ বরাদ্দ করেছিলেন। এই সময়টা বাগান কোচ কিবু ভিকুনার পছন্দ ছিল না। আসলে গোয়ায় ফতোরদা স্টেডিয়ামে চার্চিলের বিরুদ্ধে বিকেল ৫টায় খেলবে মোহনবাগান। ওইসময় অনুশীলন করতে চেয়েছিলেন ভিকুনা। সেটা মাথায় রেখে মোহনবাগান ম্যানেজার সঞ্জয় ঘোষ বিকেল ৪টে থেকে ৫টা গোয়া বিমানবন্দরের কাছে বিটস পিলানির মাঠে অনুশীলনের ব্যবস্থা করেন। সেখানেই চার্চিল বধের ছক কষলেন বাগান কোচ। 
প্রথম দফায় কল্যাণীর মাঠে ২–‌‌৪ গোলে হেরেছিল মোহনবাগান। সেটা ছিল আই লিগে বাগানের দ্বিতীয় ম্যাচ। তারপর নদী দিয়ে গড়িয়েছে অনেক জল। ওই ম্যাচের পর টানা ১০ ম্যাচ অপরাজিত বাগান। ৯টি জয়, একটি ড্র। আগের তুলনায় দল যে এখন অনেক তৈরি সেটা মানছেন ভিকুনা। তবে চার্চিল ম্যাচ জিতলেই দল চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে, এটা মানতে নারাজ। বলেন, ‘আমি একটা স্টাইলে দলকে মরশুমের শুরু থেকে খেলাচ্ছি। কল্যাণীর মাঠে চার্চিলের কাছে হারলেও দল খারাপ খেলেনি। ওই হারের পরও নিজের ফুটবল দর্শন থেকে সরে আসিনি। বরং একটাই লক্ষ্য, আগের ভুলের পুনরাবৃত্তি না করা। চার্চিল ম্যাচটা লিগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। গোয়ার মাঠে বলে আরও কঠিন। চার্চিলে প্লাজা, সিসের মতো অনেক ভাল ফুটবলার আছে। আগের দুটো ম্যাচ জেতায় ওদের মনোবল তুঙ্গে। তাই অঙ্ক কষেই ওদের বিরুদ্ধে খেলতে হবে। চার্চিল ম্যাচ জেতার জন্যই খেলবে ফুটবলাররা। তবে চ্যাম্পিনশিপ নিয়ে এখনই ভাবতে চাই না। এখন লক্ষ্য শুধু চার্চিল ম্যাচটাই।’‌ 
অ্যাওয়ে ম্যাচে চার্চিল ঝামেলায় ফেলতে পারে বুঝেই বাগান কোচ ভিকুনা তাঁর রক্ষণ আরও জমাট করতে চাইছেন। চোটের জন্য এতদিন দলের বাইরে ছিলেন স্টপার ড্যানিয়েল সাইরাস। তিনি এখন পুরো ফিট। গোয়ায় দলের সঙ্গে পুরোদমে অনুশীলন করেছেন। তাঁকে চার্চিল ম্যাচে ফ্রান মোরান্তের পাশে স্টপারে খেলানোর পরিকল্পনা নিয়েই এগোচ্ছেন কোচ ভিকুনা। সেক্ষেত্রে কুমরোন তুরসুনভ থাকবেন না প্রথম একাদশে, অ্যাটাকিং মিডফিল্ডারের ভূমিকায় দেখা যাবে ফ্রান গঞ্জালেসকে। এদিকে, ঘরের মাঠে খেলা হলেও প্রতিপক্ষ সম্পর্কে সমীহের সুর চার্চিল কোচ বার্নার্ড তাবারেজের গলায়। তবে একইসঙ্গে মাঠে নামার আগে বিনা লড়াইয়ে বাগানকে জমি ছাড়তে নারাজ। বলেন, ‘‌মোহনবাগান নিঃসন্দেহে শক্তিশালী। ওদের আক্রমণ ও রক্ষণভাগ এই মুহূর্তে সেরা। এ কারণেই পয়েন্টের বিচারে এক নম্বরে। জয়ের ছন্দে আছে। তাই ওদের গুরুত্ব না  দিলে সেটা বোকামি হবে।’‌ 
তাহলে মোহনবাগানকে কি হারানো সম্ভব ‌নয়?‌ চার্চিল কোচের জবাব, ‘ফুটবলে সব কিছুই সম্ভব। এখনও পর্যন্ত একমাত্র আমরাই মোহনবাগানকে হারিয়েছি। ওরা ভাল খেললেও কিছু দুর্বলতা তো আছেই। সেগুলি কাজে লাগিয়ে ফায়দা তুলতে হবে।’

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top