আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অকল্যান্ডে সহজ জয় পেল ভারত। ভারতীয় বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ব্যাটের মুখই খুলতে পারেননি কিউই ব্যাটসম্যানরা। বর্ণহীন দেখাল গাপ্টিল, উইলিয়ামসনদের। সামি, বুমরাহ, জাদেজাদের দুরন্ত বোলিংয়ের সামনে নুইয়ে পড়ল নিউজিল্যান্ড। ইডেন পার্কের ছোট মাঠে ২০ ওভারে পাঁচ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৩২ তুলেছিলেন ব্ল্যাকক্যাপসরা। সেই রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৭.‌৩ ওভারেই তিন উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছল ভারত। এদিনও দুরন্ত ফর্মে ছিলেন শ্রেয়স আইয়ার এবং লোকেশ রাহুল। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে বোলারদের দাপটে সহজেই ২–০ করল ভারত। অকল্যান্ডে দ্বিতীয় টি–টোয়েন্টিতেও টস হেরেছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি। টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছিলেন কিউয়ি অধিনায়ক। ব্যাট করতে নেমে ঝোড়ো শুরু করেছিল নিউজিল্যান্ড। শার্দুল ঠাকুরের প্রথম ওভারে উঠেছিল ১৩ রান। তার মধ্যে মার্টিন গাপ্টিলই করেছিলেন ১২। যদিও তিনিই প্রথমে ফিরেছিলেন। ষষ্ঠ ওভারে শার্দুল ঠাকুরের বলে ফিরলেন গাপ্টিল। ৪৮ রানে পড়েছিল কিউয়িদের প্রথম উইকেট। এর পর কলিন মুনরোর ক্যাচ নিয়েছিলেন কোহালি। এদিন দুর্দান্ত ফিল্ডিং করলেন তিনি। শুধু ক্যাচই নিলেন না, বাঁচালেন রানও। মণীশ পাণ্ডেও আউটফিল্ডে অসাধারণ ফিল্ডিং করলেন। সব মিলিয়ে ভারতীয় ফিল্ডিংকে এদিন দুরন্ত দেখাল। নিউজিল্যান্ডের হয়ে শেষের দিকে টিম সেইফার্ট ২৬ বলে ৩৩ রানে অপরাজিত না থাকলে অবস্থা আরও করুণ হত। কিন্তু অভিজ্ঞ রস টেলরকে ভারতীয় বোলারদের স্কিলের সামনে দিশেহারা দেখাল। তিনি ২৪ বলে করলেন মাত্র ১৮!
ইনিংসের শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছিল ভারতের ইনিংস। টিম সাউদির ষষ্ঠ বলে স্লিপে রস টেলরকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রোহিত শর্মা। সেই সাউদিই ফের আঘাত হানলেন। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে ফেরালেন বিরাট কোহালিকে। তারপরই ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেন লোকেশ রাহুল। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিলেন শ্রেয়স আইয়ার। দু’‌জনে মিলে ঠান্ডা মাথায় ভারতের রানকে টার্গেটের দিকে এগিয়ে নিয়ে গেলেন। এদিনও নিজের হাফসেঞ্চুরি করলেন রাহুল। আইয়ারও হাফসেঞ্চুরি পেতেন। কিন্তু ৪৪ রানের মাথায় বড় শট খেলতে গিয়ে আউট হন তিনি। শিবম দুবে ছক্কা মেরে ভারতকে জিতিয়ে দেন। রাহুল ৫৭ করে অপরাজিত থাকেন। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top