সংবাদ সংস্থা, পার্থ, ২৪ ফেব্রুয়ারি- পরপর দুই ম্যাচে জয় পেল হরমনপ্রীত ব্রিগেড। মহিলাদের টি২০ বিশ্বকাপে সোমবার ভারত ১৮ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশকে। ম্যাচ শুরুর আগে ধাক্কা খেয়েছিল ভারত। অসুস্থতার জন্য এই ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছিলেন স্মৃতি মানধানা। তবুও শেফালি ভার্মা, জেমাইমা রডরিগেজ, বেদা কৃষ্ণমূর্তিদের ব্যাট ঢেকে দিয়েছে স্মৃতির অভাব। 
প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জিতলেও ভারতের ব্যাটিং ভাল হয়নি। পুনম যাদব এবং শিখা পান্ডে বল হাতে জ্বলে না উঠলে অসিদের হারানো কঠিন ছিল। সোমবার ভারত আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৪২ রান তোলে। টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সালমা খাতুন। তখন ভারত অধিনায়ক হরমনপ্রীত কাউর জানান, তাঁরা আগেই ব্যাট করতে চেয়েছিলেন। তাঁর কথায়, ‘‌আমাদের লক্ষ্য বোর্ডে বড় রান তোলা।’‌ অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের তুলনায় বেশি রান উঠলেও তাকে মোটেই বড় রান বলা যাবে না। বিরতিতে জেমাইমা রডরিগেজ তাই বলেছিলেন, ‘‌এটাকে ভাল স্কোর বলব না। কিন্তু লড়াই করার মতো। আমাদের বোলিং এবং ফিল্ডিং ভাল করতে হবে।’‌ ফিল্ডিং খুব ভাল হয়নি ঠিকই, কিন্তু ভারতের আঁটসাঁট বোলিংয়ে বাংলাদেশের প্রমীলা ব্রিগেড থেমে গিয়েছে ৮ উইকেটে ১২৪ রানে।
টি২০ মেজাজে ব্যাট করলেন শেফালি। ১৭ বলে ৩৯ রানের ইনিংসে রয়েছে ২টি চার, ৪টি ছয়। অফ স্টাম্পের অনেকটা বাইরের বল তাড়া করে উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে আসেন হরমন (‌৮)‌। ৩৪ করে রান আউট জেমাইমা। এদিন স্মৃতির পরিবর্তে দলে সুযোগ পান বঙ্গতনয়া রিচা ঘোষ। জীবনের দ্বিতীয় টি২০–তে ছয় নম্বরে নেমে ১৪ রান করে বছর ষোলোর রিচা। বেদার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট দীপ্তি শর্মা (‌১১)‌। কয়েকদিন আগে পুরুষদের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ভারতের ধ্রুব জুরেল এবং অথর্ব আঙ্কোলেকার নন–স্ট্রাইকিং প্রান্তে প্রায় একই লাইনে চলে গিয়েছিলেন। এদিন বেদা–দীপ্তির ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। দুই ছবিই পোস্ট করেছে আইসিসি। বেদা ১১ বলে ২০ রানে অপরাজিত।
আগের ম্যাচে ৪ উইকেট নেওয়ার পর এদিন পুনমের শিকার সংখ্যা ৩। জোড়া উইকেট শিখা এবং অরুন্ধতী রেড্ডির। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান নিগর সুলতানার (‌৩৫)‌।‌ ম্যাচের সেরার পুরস্কার নিয়ে শেফালি বলেছেন, ‘‌আজ স্মৃতি নেই, তাই অতিরিক্ত দায়িত্ব নিয়ে খেলতে চেয়েছি। আমি খুশি। এভাবেই খেলতে চাই।’‌ আর হরমন আশাবাদী, পরের ম্যাচের আগেই সুস্থ হয়ে যাবেন স্মৃতি। বেদার ইনিংসেরও প্রশংসা করেছেন ভারত অধিনায়ক। 
স্কোর
ভারত:‌ তানিয়া ক নিগার ব সালমা ২ (‌‌৫)‌‌, শেফালি ক শামিমা ব পান্না ৩৯ (‌‌১৭)‌‌, জেমাইমা রান আউট ৩৪ (‌‌৩৭)‌‌, হরমনপ্রীত ক রুমানা ব পান্না ৮ (‌‌১১)‌‌, দীপ্তি রান আউট ১১ (‌‌১৬)‌‌, রিচা ক নাহিদা ব সালমা ১৪ ‌(‌‌১৪)‌‌, বেদা অপরাজিত ২০ (‌‌১১)‌‌, শিখা অপরাজিত ৭ (‌‌৯)‌‌, অতিরিক্ত ৭, মোট (‌‌২০ ওভারে ৬ উইকেটে)‌‌ ১৪২। উইকেট পতন:‌ ১/‌১৬, ২/‌৫৩, ৩/‌৭৮, ৪/‌৯২, ৫/‌১১১, ৬/‌১১৩। বোলিং:‌ জাহানারা ৪–০–৩৩–০, সালমা ৪–০–২৫–২, নাহিদা ৪–০–৩৪–০, পান্না ৪–০–২৫–২, রুমানা ২–০– ৮–০, ফাহিমা ২–০–১৬–০। 
বাংলাদেশ:‌ শামিমা ক দীপ্তি ব শিখা ৩ (‌‌৮)‌‌, মুরশিদা ক রিচা ব অরুন্ধতী ৩০ (‌‌২৬)‌‌, সঞ্জীদা ক তানিয়া ব পুনম ১০ (‌‌১৭)‌‌, নিগার ক অরুন্ধতী ব রাজেশ্বরী ৩৫ (‌‌২৬)‌‌, ফারগানা ক তানিয়া ব অরুন্ধতী ০ (‌‌৪)‌‌, ফাহিমা ক শেফালি ব পুনম ১৭ (‌‌১৩)‌‌, জাহানারা স্টাঃ তানিয়া ব পুনম ১০ (‌‌১০)‌‌, রুমানা ব শিখা ১৩ (‌‌৮)‌‌, সালমা অপরাজিত ২ (‌‌৫)‌‌, নাহিদা অপরাজিত ২ (‌‌৩)‌‌, অতিরিক্ত ২, মোট (‌‌২০ ওভারে ৮ উইকেটে)‌‌ ১২৪। উইকেট পতন:‌ ১/‌৫, ২/‌৪৪, ৩/‌৬১, ৪/‌৬৬, ৫/‌৯৪, ৬/‌১০৬, ৭/‌১০৮, ৮/‌১২১। বোলিং:‌ দীপ্তি ৪–০–৩২–০, শিখা ৪–০–১৪–২, রাজেশ্বরী ৪–০–২৫–১, অরুন্ধতী ৪–০–৩৩–২, পুনম ৪–০–১৮–৩। 
 ভারত জয়ী ১৮ রানে।
 ম্যাচের সেরা:‌ শেফালি ভার্মা। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top