আজকালের প্রতিবেদন- প্রত্যাশামতোই আই লিগে নতুন কর্পোরেট দলকে খেলার সুযোগ করে দিতে দরপত্র বাজারে ছাড়ল ফেডারেশন। টেন্ডার নোটিসে বলা হয়েছে, দিল্লি, রাঁচি, জয়পুর, যোধপুর, ভূপাল, লখনউ, আমেদাবাদের দল দরপত্র তোলার সুযোগ পাবে। যে দল সব শর্ত পূরণ করবে, সেই দল ২০২০ মরশুম থেকে আই লিগে খেলবে। চ্যাম্পিয়ন হলে এএফসি ক্লাব প্রতিযোগিতায় খেলার সুযোগ পাবে। 
১০ জুন বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে অফেরতযোগ্য ৪ লাখ টাকায় দরপত্র কেনা যাবে দিল্লির ফেডারেশনের সদর দপ্তর থেকে। জমা দেওয়ার শেষ দিন ২০ জুন। অন্যান্য শহরের কথা বলা হলেও দরপত্র ছাড়া হচ্ছে মূলত দিল্লির দল সুদেভা এফসি–‌র কথা মাথায় রেখে। সুদেভা অনেকদিন ধরেই আই লিগে খেলার আগ্রহ প্রকাশ করছে। দিল্লি ডায়নামোজ আইএসএল থেকে সরে যাওয়ার পর দিল্লির কোনও দল নেই। সুদেভাকে আই লিগে নেওয়া হতে পারে, এমন ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ফেডারেশন সচিব কুশল দাস ও আই লিগ সিইও সুনন্দ ধর। ‌‌‌
ইস্টবেঙ্গলকে মাথায় রেখে ১২ দলের আই লিগ আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে ফেডারেশনের। গত মরশুমে ১১ দলের লিগ হয়েছিল। মোহনবাগান আই এল এলে চলে গেছে এটিকের সঙ্গে মিলে যাওয়ায়। তাই দ্বিতীয় ডিভিশন থেকে একটি দল উঠে এলেও নতুন একটি দলের দরকার ছিল ১২ দলের লিগ করতে। সুদেভা এফ সি কর্ণধার অনুজ গুপ্তা জানান, ‘‌ আমার আই লিগ খেলতে আগ্রহী। একথা ফেডারেশনকে জানিয়েওছিলাম। এখন ওরা বিড করার সুযোগ দিয়েছে। বিড পেপার তুলব ও জমাও দেব। শক্তিশালী দল গড়ব, ভাল ফল করার লক্ষ্যে।’‌ কলকাতা ও ভিনরাজ্যের অনেক ফুটবলার সুদেভার কর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন নতুন দলে জায়গা পেতে।
এদিকে, ভারতীয় ফুটবলে গ্রীষ্ণকালীন ট্রান্সফার উইন্ডোর সময় বদলে যাচ্ছে। আগে ছিল ৯ জুন থেকে ৩১ আগস্ট। এবার করোনাভাইরাসের জন্য দেশজুড়ে খেলাধুলো বন্ধ থাকার দরুন নতুন ট্রান্সফার উইন্ডো হতে যাচ্ছে ১ আগস্ট থেকে ২০ অক্টোবর। ফেডারেশনের কার্যকরী কমিটি এই নতুন তারিখ মানলে তা ফিফার কাছে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। তবে ইউরোপিয়ান ট্রান্সফার মার্কেটের সময় কখন , এটা পরিষ্কার না হওয়ায় ফুটবলার সই করানোয় একটা সমস্যা দেখা দিতে পারে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top