তরুণ চক্রবর্তী, গুয়াহাটি: গুয়াহাটির বড়ঝাড়ে গোপীনাথ বরদলুই বিমানবন্দরে সকাল থেকেই ছিল ব্যস্ততা। মেয়ে ঘরে ফিরছে। যেমন–তেমন করে তো আর সোনার মেয়ে হিমা দাসকে স্বাগত জানানো যায় না! এই মুহূর্তে অসমের সবার হৃদয় জুড়ে ধিং গাঁয়ের মেয়ে। এশিয়ান গেমসে ৪×‌৪০০ মিটার রিলেতে সোনাজয়ী হিমা বেলা ১টা নাগাদ পৌঁছন গুয়াহাটি। তাঁকে স্বাগত জানানো হয় অভিনব উপায়ে। গুয়াহাটির বিমানবন্দরে লাল কার্পেট বিছিয়ে দেওয়া হয়। যা ছিল অনেকটা ট্র‌্যাকের আদলে তৈরি!‌ হিমাকে সামনে দেখেই জয়ধ্বনি ওঠে বিমানবন্দর চত্বরে। আপনজনদের মাঝে ফিরে উচ্ছ্বসিত হিমাও। তাঁর মুখের হাসিই বলে দিচ্ছিল মনের খবর। অসম সরকার আগেই রাজ্যের গর্ব হিমাকে ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল নিজে উপস্থিত ছিলেন বিমানবন্দরে হিমাকে স্বাগত জানাতে। ছিলেন অগপ নেতা, রাজ্যের মন্ত্রী কেশবকুমার মহন্তও। কেশব মহন্ত জানিয়েছেন, তাঁরা হিমার মূর্তি বসাবেন শহরে। হিমা নিজের এই সাফল্য উৎসর্গ করেছেন তাঁর কোচ, রাজ্যবাসী ও সংবাদমাধ্যমকে। বলেছেন, ভবিষ্যতে আরও বড় কিছু করার ইচ্ছে আছে তাঁর। এদিন বিমানবন্দর থেকে শহরে ঢোকার আগে হিমা যান ভূপেন হাজারিকার স্মৃতিসৌধে। সেখানে অসমের কিংবদন্তি শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তার পর খোলা জিপে শহরে ঢোকেন। দিনভর চলে সংবর্ধনা।
এদিকে ঘরে ফেরার দিনই কন্টিনেন্টাল কাপ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন হিমা। অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া চেয়েছে হিমাকে বিশ্রাম দিতে। চেক প্রজাতন্ত্রে এই টুর্নামেন্ট শুরুর কথা ছিল শনিবারই। মরশুম শেষে ওস্ট্রাভেতে এই টুর্নামেন্টে ভারতের সাত অ্যাথলিটের তালিকায় প্রথমেই নাম ছিল হিমার। শুধুই কি বিশ্রাম নিতে সরে দাঁড়ালেন? নাকি চোট রয়েছে? খবর, হিমার নাকি পায়ে হালকা টান ধরেছে। তবে আঠেরোর অ্যাথলিটের এক কোচ জানিয়েছেন, ‘‌না, সেরকম কিছু সমস্যা নেই। হিমা ফিটই আছে। তবে ওর ওপর অযথা চাপ তৈরি করতে আমরা চাই না।’‌

অসমিয়ার বেশে হিমা। ছবি:‌ পিটিআই‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top