আজকালের প্রতিবেদন: শীতের সন্ধ্যেয় ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের উঠোনের মনোরম পরিবেশে মন্ত্রমুগ্ধ শ্রোতারা। মুগ্ধ হওয়ারই কথা। কারণ এক নিঃশ্বাসে পুল্লেলা গোপীচাঁদ বলে চলেছেন, ‘আমি সত্যিই খুব আহত হয়ে ছিলাম। বিশ্বাসই করতে পারিনি ঠিক কী ঘটতে চলেছে? কেন বলছে এরকম কথা? আমি কাউকেই তো ছোট করতে চাই না। যেখানে প্রকাশ স্যর (পাড়ুকোন) ডাকছেন তখন তো কোনও প্রশ্নই নেই। তাও আমার গোটা ঘটনাটা হজম করতে সময় লেগেছিল। অবাক হয়ে গিয়েছিলাম।’ শ্রোতারা বোঝার চেষ্টা করছেন কী বলতে চাইছেন জাতীয় ব্যাডমিন্টন দলের কোচ পুল্লেলা গোপীচাঁদ!
টাটা স্টিল আয়োজিত সাহিত্য উৎসবে গোপীচাঁদ এবং দুটো সোনাজয়ী প্যারা অলিম্পিয়ান দেবেন্দ্র ঝাঝারিয়াকে িনয়ে একটি বই প্রকাশ উপলক্ষ্যেই কলকাতায় শুক্রবার এসেছিলেন গোপীচাঁদ। 
তাঁকে ছেড়ে একটা সময়ে সাইনা নেহাল বেঙ্গালুরুতে প্রকাশ পাড়ুকোনের অ্যাকাডেমিতে চলে গিয়েছিলেন। সাইনার মতো তারকা হঠাৎ অ্যাকাডেমি ছেড়ে চলে যাওয়ায় ঠিক কী মনে হয়েছিল, সেই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন গোপীচাঁদ। তবে উল্লেখ্য, বর্তমানে সাইনা আবার ফিরে এসেছেন হায়দরাবাদে গোপীচাঁদের অ্যাকাডেমিতেই।
গোপীচাঁদের আরেক ছাত্রী পি ভি সিন্ধু সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন বিশ্বজুড়ে ঠাসা ক্রীড়া সূচির বিরুদ্ধে। সেই বিষয়েও উত্তর দিয়েছেন গোপীচাঁদ, যিনি আবার সিন্ধুরও কোচ। গোপীর বক্তব্য, ‘অতিরিক্ত ম্যাচ এই মুহূর্তে বিশ্ব জুড়েই একটা ইস্যু। কিন্তু সিন্ধুকে এই ঠাসা ক্রীড়াসূচির সঙ্গেই মানিয়ে নিতে হবে। বাকিরা যেভাবে মানিয়ে নিয়েছে। অভিযোগ করলে চলবে না।’ কীভাবে তিনি ব্যাডমিন্টনের দুই সুপারস্টার সিন্ধু–সাইনাকে সামলান? হেসে ফেললেন এই দুই তারকার ‘গোপী স্যর’। ‘কঠিন কাজ। দু’জনেই আমার সন্তানের মতো। বিভিন্ন সময়ে নিজের মতো করে মানিয়ে নিয়ে চলি দু’জনকেই।’
টোকিও অলিম্পিকে সিন্দুর পদক জেতার সম্ভাবনা কতটা? গোপীচাঁদের উত্তর,‘প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। বাকিদের সঙ্গে লড়তে হবে। আমি আশাবাদী।’  

কলকাতায় গোপীচঁাদ, ঝাঝারিয়া। ছবি: রাজকুমার মণ্ডল 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top