আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সব ক্রিকেটারের জীবনেই খারাপ সময় আসে। ইশান্ত শর্মার কেরিয়ারেও এসেছিল। এতটাই বিধ্বস্ত তিনি হয়ে পড়েছিলেন, যে মনে হয়েছিল দেশের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করে ফেলেছিলেন। এমনকি বান্ধবীকে ফোন করে কান্নাকাটিও করেছিলেন ইশান্ত।
২০১৩ সালে মোহালিতে ভারত–অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে সিরিজের তৃতীয় একদিনের ম্যাচের কথা উল্লেখ করেছেন ইশান্ত। ওই ম্যাচে অসিদের জেতার জন্য ৩ ওভারে ৪৪ রান দরকার ছিল। কিন্তু ইশান্তের এক ওভারেই ম্যাচ অসিদের দিকে ঝুঁকে পড়ে। অসি অলরাউন্ডার জেমস ফকনার ইশান্তের ওভারে ৩০ রান তুলে নেন। তার মধ্যে ছিল চারটি ছয়। ইশান্ত বলেছেন, ‘‌২০১৩ সালটাই আমার জীবনের টার্নিং পয়েন্ট। ফকনারের ওই বিধ্বংসী ইনিংস অস্ট্রেলিয়াকে জিতিয়ে দেয়।’‌ ওই ম্যাচে ২৯ বলে ৬৪ করেছিলেন ফকনার। ৩০৪ রান তাড়া করে জিতে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ওই ম্যাচের পরই একদিনের দল থেকে বাদ পড়েন ইশান্ত। তিনি বলেছেন, ‘‌মনে হয়েছিল দেশের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছি। ওই ম্যাচের পর দু থেকে তিন সপ্তাহ কারও সঙ্গে কথা বলিনি। খুব কেঁদেছিলাম। বান্ধবীকে পর্যন্ত ফোন করে শিশুর মতো কান্নাকাটি করেছিলাম। খাওয়াদাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলাম। ঘুমোতে পারতাম না।’‌
এখন অবশ্য সেই দিনের কথা মনে করলে হাসি পেয়ে যায় ইশান্তের। তিনি বলেছেন, ‘‌ওই ম্যাচটা শাপে বর হয়েছিল। নিজেকে নতুন করে ফিরে পেয়েছিলাম।’‌ 
আর তিনটি শিকার হলেই টেস্টে ৩০০ উইকেট হবে ইশান্তের। দীর্ঘদেহী পেসারের পাখির চোখ আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফর। 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top