আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর, দিল্লি। রাত ৯.‌৩০ মিনিট। চলন্ত বাসে বাসচালক, খালাসি এবং তাদের চার বন্ধুর দ্বারা ধর্ষিতা হন নির্ভয়া। দীর্ঘ বিচারের পর চার দোষী মুকেশ সিং, বিনয় শর্মা, মহম্মদ আফরোজ এবং অক্ষয় ঠাকুকে ২০১৭–র ৫ মে সুপ্রিম কোর্ট মৃত্যুদণ্ড দেয়। কিন্তু তারপর দুবছর কেটে গেলেও এখনও রায় কার্যকর হয়নি। এরমধ্যেই বিনয় শর্মা প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছে রাষ্ট্রপতির কাছে। তার আবেদন না শোনার জন্য রাষ্ট্রপতিকে আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে দিল্লি মহিলা কমিশনের প্রধান স্বাতী মালিওয়াল শুক্রবার আগামী ১৬ তারিখের আগেই চার দোষীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার দাবি করেছেন। নির্ভয়ার ধর্ষকদের অবিলম্বে ফাঁসি দেওয়ার দাবিতে অনির্দিষ্টকালীন অনশন করছেন স্বাতী। এদিন কেন্দ্রের পদক্ষেপ সম্পর্কে তিনি বললেন, ‘‌যে কাজটা এখন হচ্ছে সেটা অনেক বছর আগেই হওয়া উচিত ছিল। ঠিক আছে, এত দিন পর ওরা জেগে উঠেছে। ১৬ ডিসেম্বরের আগে নির্ভয়া মামলার দোষীদের ফাঁসি দিতে হবে।’‌
পক্সো আইনে ধৃত ধর্ষকের ক্ষমাপ্রার্থনার অধিকার থাকা অনুচিত বলে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের বিবৃতিতে খুশি স্বাতী বললেন, ‘‌রাষ্ট্রপতির পদক্ষেপকে স্বাগত জানাই। আমার মনে হয় ধর্ষণ মামলায় কেউ দোষী প্রমাণিত হলে তার ক্ষমাপ্রার্থনার আবেদনের কোনও অধিকার থাকাই অনুচিত। সংসদের উচিত আইন পরিবর্তন করে ধর্ষণ মামলায় ক্ষমাপ্রার্থনার আবেদনের বিষয়টাই তুলে নেওয়া উচিত। রাষ্ট্রপতিকে এব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে আবেদন করছি।’‌ ধর্ষকদের জন্য সরকার কড়া আইন না আনা পর্যন্ত তিনি আমরণ অনশন চালিয়ে যাবেন বলে এদিন ফের স্পষ্ট করে স্বাতী বলেছেন, ‘‌আইন মেনে যত দ্রুত সম্ভব শাস্তি দিতে হবে আর তা হলেই আমি অনশন ভাঙব।’‌
২০১২ সালের সেই দিন কালো কাঁচ আর ভারী পর্দায় মোড়া হোয়াইটলাইনারের ওই বাসটি নির্ভয়াদের নিয়ে পরপর সাতটা প্যাট্রোলিং বুথ পেরিয়ে গেলেও তাঁর বা তাঁর পুরুষবন্ধুর আর্তনাদ নাকি শুনতে পাননি কোনও টহলদারি পুলিসকর্মী। কয়েক ঘণ্টা পর অর্ধমৃত নির্ভয়া এবং তাঁর বন্ধুকে চলন্ত বাস থেকে ছুড়ে ফেলে দিয়ে চম্পট দিয়েছিল বাসটি। সেই ঘটনায় উত্তাল হয়েছিল সারা দেশ। দিল্লির কনকনে ঠান্ডা উপেক্ষা করে নির্ভয়ার জন্য ন্যায়বিচারের দাবিতে রাতের পর রাত রাস্তায় অবস্থান বিক্ষোভ করেছিল দেশবাসী। যা নাড়িয়ে দিয়েছিল দিল্লির তিন দশকের শীলা দীক্ষিতের সরকারকে। সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও বাঁচানো যায়নি নির্ভয়াকে। অভিযুক্ত ৬ জনই গ্রেপ্তার হয়। বাসচালক রাম সিং–কে ২০১৩–র ১১ মার্চ তিহার জেলে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। সেসময় ১৮ বছরের কম হওয়ায় অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্ত জুভেনাইল আদালতের বিচারে মুক্তি পেয়ে যায় ২০১৫–র ২০ ডিসেম্বর। যা নিয়েও অনেক সমালোচনা এবং প্রতিবাদ হয়েছিল। তারপর ওই বছরই ২২ ডিসেম্বর রাজ্যসভা জুভেনাইল জাস্টিস বিল পাস করে। ওই বিলে প্রস্তাব করা হয়, ১৬ বছরের উপর কেউ ধর্ষণ বা ওইরকম ঘৃণ্য অপরাধে যুক্ত থাকলে তার বিচার প্রাপ্তবয়স্ক হিসেবেই হবে।
ছবি:‌ এএনআই 

জনপ্রিয়

Back To Top