আজকাল ওয়েবডেস্ক: ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে তাঁর সরাসরি রাজনীতিতে প্রবেশ। তারপর একের পর এক‌ আন্দোলন তাঁর জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে। কংগ্রেসের ফল হয়তো খারাপ হয়েছে। কিন্তু প্রিয়াঙ্কা গান্ধী এগিয়েছেন। দিল্লিতেও ব্যাপক বিপর্যয় হল। কিন্তু এখন কংগ্রেসকে ঘুরিয়ে দাঁড়াতে গেলে তিনিই ভরসা৷ তাই তাঁকেই রাজ্যসভায় পাঠানো হবে বলে জল্পনা তৈরি হয়েছে।
সূত্রের খবর, কংগ্রেসে খুব শীঘ্রই বড় সাংগঠনিক রদবদল হতে চলেছে৷ কারণ সোনিয়া গান্ধীর শারীরিক অবস্থা ভাল নয়৷ কংগ্রেস নেতৃত্বের একাংশ চাইছে সোনিয়াই সভানেত্রী থাকুন৷ অন্য অংশের দাবি, রাহুল গান্ধী ফের দলের সভাপতি হন৷ আর প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠানো হোক৷ অম্বিকা সোনি, গুলাম নবি আজাদ এবং দিগ্বিজয় সিংয়ের রাজ্যসভায় মেয়াদ শেষ হতে চলেছে৷ কংগ্রেসের কোটায় রয়েছে ছত্তিশগড়, রাজস্থান এবং ঝাড়খণ্ড৷ এই পরিস্থিতিতে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে রাজ্যসভায় পাঠানো নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা৷ ছত্তিশগড়ের কংগ্রেস নেতারা চাইছেন প্রিয়াঙ্কা তাঁদের রাজ্য থেকে রাজ্যসভায় যান৷
উল্লেখ্য, প্রিয়াঙ্কা বর্তমানে দলের উত্তরপ্রদেশের সংগঠনের দায়িত্বে৷ ফলে প্রিয়াঙ্কা রাজ্যসভায় চলে গেলে উত্তরপ্রদেশে সংগঠন দুর্বল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনার কথাও উড়িয়ে দিচ্ছে না কংগ্রেস৷ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে গুলাম নবি আজাদ ফের রাজ্যসভায় যাচ্ছেন তা প্রায় নিশ্চিত৷ কিন্তু জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, করুণা শুক্লা, রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা ও ভূপিন্দর সিং হুডারা রাজ্যসভায় স্থান পাবে কি না সেটা স্পষ্ট নয়৷
 

জনপ্রিয়

Back To Top