আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বছরের পর বছর মঙ্গলে ঘাঁটি গেড়ে বসেছিল নাসার যান। এলিয়ন থেকে জল কিসের সন্ধান চলেনি এই লালগ্রহে। কিন্তু চমকে দেওয়ার মতো কোনও ঘটনা ঘটেনি এতবছরে। গত ৬ এপ্রিল যা ঘটল তাতে রীতিমতো শিহরিত বিজ্ঞানীরা। নাসার যানের সিসমোমিটারে ধরা পড়ল তীব্র কম্পন। পৃথিবীতে যাকে সবাই ভূমিকম্প বলেই জানে। সেরকমই তীব্র কম্পন অনুভূত হয়েছে মঙ্গলে। তার আগে প্রবল ঝড় চলেছে। রীতিমতো গোঙানির মত শব্দ শোনা গিয়েছে সেই ঝড়ের। তারপরেই শুরু হয় কম্পন। 
সিসমোমিটারের গ্রাফের অস্বাভাবিক উত্থান পতন দেখেই রীতিমত শিহরিত হয়ে ওঠেন বিজ্ঞানীরা। এই প্রথম পৃথিবী ছাড়াও সৌর মণ্ডলের অন্য কোনও গ্রহে কম্পন দেখতে পেলেন বিজ্ঞানীরা। এই নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে জোর জল্পনা। পৃথিবীর সঙ্গে আরও একটি মিল খুঁজে পেলেন তাঁরা। এর আগে মঙ্গলে জলের উৎস্যের সন্ধানে নেমেছিলেন তাঁরা। তাতে নদী খাতের আকৃতির বেশ কিছু চিহ্ন মঙ্গলের মাটিতে দেখতে পেয়েছিলেন তাঁরা। এমনকী কয়েকদিন আগে পর্যন্ত মঙ্গলে ভিনগ্রহীদের বাস আছে বলে দাবি করতে শুরু করেছিলেন একাধিক বিজ্ঞানী। যতিই এই দাবির সত্যতা প্রমাণে কোনও প্রমাণ তাঁরা দেখাতে পারেননি। তাই জলের অস্তিত্বের খোঁজে মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন বিজ্ঞানীরা। এই খোঁজের যুদ্ধে অন্তত একটি সূত্র তো মিলে গেল। 

জনপ্রিয়

Back To Top