আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌গুগলে ‘‌ইনকগনিটো মোড’‌ চালু করলেও আপনি সুরক্ষিত নন। আপনি ইন্টারনেটে কী সার্চ করছেন, সবই জানতে পারছে গুগল। অভিযোগ জমা পড়েছে আমেরিকার উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার একটি জেলা আদালতে। মামলাকারীর দাবি, গোপনীয়তা বজায় রাখার সমস্ত পদক্ষেপ নেওয়ার পরও কোনও ব্যক্তি গুগল মারফত ইন্টারনেটে কী সার্চ দিচ্ছেন, তা নজরে রাখে ওই সংস্থা। ক্যালিফোর্নিয়ার আইন অনুযায়ী, অনুমতি ছাড়া ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ দণ্ডনীয় অপরাধ। অভিযোগ পত্রে লিখেছেন ওই মামলাকারী, খবর আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘‌দ্য নিউইয়র্ক টাইমস্‌’‌ সূত্রে। জানা গিয়েছে, অভিযোগ প্রমাণিত হলে গুগলকে ৫০০ কোটি ডলার জরিমানাও দিতে হবে। যদিও এই অভিযোগ সম্পূর্ম অস্বীকার করেছে গুগল সংস্থা। সংস্থার এক কর্মীর দাবি, ‘‌ইনকগনিটো মোডে গ্রাহকেরা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত। ইনকগনিটো মোড একবার অন করার পর ওই গ্রাহক গুগলে কী সার্চ দিচ্ছেন, জানতে পারে না গুগল। ওই তথ্যও ব্রাউজারে সেভ হয় না। আমরা এই অভিযোগ অস্বীকার করছি। আমাদের কাছে সমস্ত প্রমাণ আছে।’‌ 
তবে সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষা জানাচ্ছে, ইনকগনিটো মোড অন থাকলেও গুগল অ্যানালেটিক্স তা ধরতে পারে। ফলে গুগল ইউজার কোনও ওয়েবাসাইটে কতক্ষণ রয়েছে, কত ডেটা খরচ করছে, জেনে যায় ওই ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ। মাইক্রোসফ্ট, কার্নেগি মেলন বিশ্ববিদ্যালয় এবং পেনসিনভ্যানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা ২২,৪৮৪টি পর্ণ ওয়েবসাইটের ওপর একটি সমীক্ষা চালায়। তারা জানাচ্ছে ‘‌ওয়েবএক্সরে’ টুল ব্যবহার করে ব্যবহারকারী সম্পর্কে সংগ্রহ করা হয়েছে এবং সেই তথ্য বাজারের বিক্রিও করা হয়েছে।    

জনপ্রিয়

Back To Top