আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সারা চেন্নাই ধুঁকছে জলাভাবে। সেখানে জল সংরক্ষণে তামিলনাড়ুরই এক দম্পতির অভিনব আবিষ্কারে তাক লেগে গিয়েছে সবার। দয়ানন্দ কৃষ্ণন এবং উদয়বনী নামে ওই সিভিল ইঞ্জিনিয়ার দম্পতি মাত্র আড়াইশো টাকা খরচ করে নিজেদের বাড়িতেই বানিয়ে ফেলেছেন বৃষ্টির জল ধরে রাখার ওই নতুন উপায়। এই ডু–ইট–ইওরসেল্ফ বা ডিআইওয়াই কৌশলের জন্য তাঁদের লেগেছে একটি তিন ফুটের পিভিসি পাইপ, পাইপ আটকানোর কব্জা এবং কাপড়ের ফিল্টার। 
১০ বছর আগে যখন চেন্নাইয়ের দক্ষিণাংশের শহরতলি চিতলাপাক্কাম হ্রদ চেন্নাই এবং সংলগ্ন এলাকার ভূগর্ভস্থ জলের অন্যতম উৎস হয়ে উঠেছিল, তখনই পাকাপাকিভাবে সেখানে চলে যান সপরিবার দয়ানন্দ। কৃষ্ণন দম্পতির কথায়, ওই এলাকায় চারটি বিশাল হ্রদ থাকলেও সংরক্ষণের অভাবে প্রাকৃতিক জল থেকে এলাকাবাসী বঞ্চিত। পুরসভা থেকে নিয়মিত জল সরবরাহ হয় না। যেটুকু ভূগর্ভস্থ জল মেলে তাতে না কাজ না হওয়ায় প্রাত্যহিক কাজকর্ম মেটাতে বেসরকারি ট্যাঙ্কার থেকে জল কিনতে হত তাঁদের।
এরপরই বৃষ্টির জল ধরে রাখার চিন্তা মাথায় আসে ওই সিভিল ইঞ্জিনিয়ার দম্পতির। সেই মতো, বাড়ির জলের পাইপলাইনকে দুভাগ করে বৃষ্টির জল ধরে রাখতে সেই পাইপ ড্রামের সঙ্গে যুক্ত করেছেন তাঁরা। তাঁদের ৪০০ বর্গফুট ছাদের পাইপ বেয়ে বৃষ্টির জল জমা হয় ওই ড্রামেই। এভাবেই গত সপ্তাহের ভারী বৃষ্টির ফলে মাত্র ১০ মিনিটে ২২৫ লিটার জল জমা হয়েছে তাঁদের ওই ড্রামে। তা দিয়ে টানা চারদিন কাপড়, বাসন, গাড়ি ধোয়া, ঘরদোর ঝাড়পোঁছের মতো দৈনন্দিন কাজকর্ম অনায়াসে করে ফেলেছেন তাঁরা, জানালেন দয়ানন্দ এবং উদয়বনী। দয়ানন্দ আরও বললেন, ৬০০০ লিটার জলের জন্য তাঁদের ১৫০০ টাকা করে দিতে হয়। তাছাড়া দীর্ঘক্ষণ জলের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। সেই ঝামেলা থেকে অনেকটাই মুক্তি মিলেছে বলে খুশি কৃষ্ণন পরিবার।
ছবি:‌ ডেইলিহান্ট‌

জনপ্রিয়

Back To Top