আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন সামশেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী রেজাউল হক ওরফে মন্টু বিশ্বাস। বুধবার রাতেই তাঁকে জঙ্গিপুর থেকে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় নিয়ে আসা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। 
আগামী ২৬ এপ্রিল রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের সপ্তম দফায় সামশেরগঞ্জ আসনে ভোটগ্রহণ। আর তার আগেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্য়ু হল সামসেরগঞ্জের কংগ্রেস প্রার্থী রেজাউল হকের। এই পরিস্থিতিতে আপাতত পিছিয়ে গেল সামশেরগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচন৷ শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা থাকায় তাঁকে গতকাল জঙ্গিপুরে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর অবস্থার অবনতি হওয়ায় গতকাল রাতেই তাঁকে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় নিয়ে আসা হয়েছিল। রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। আজ ভোর পাঁচটা নাগাদ মৃত্যু হয় রেজাউলের। 
জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন রেজাউল ওরফে মন্টু বিশ্বাস। করোনা পরীক্ষা হয় তাঁর। বুধবার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপরই তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই মারা যান তিনি। 
এটা ঘটনা যে এই মুহূর্তে বিভিন্ন কেন্দ্রের একাধিক প্রার্থী করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। জানা গিয়েছে মুর্শিদাবাদ জেলারই জঙ্গীপুর কেন্দ্রের আরএসপি প্রার্থী প্রদীপ নন্দী করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। করোনায় আক্রান্ত হয়ে শিলিগুড়ির হাসপাতালে ভর্তি জলপাইগুড়ির তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ কুমার বর্মাও৷ নদিয়ার করিমপুরের বিজেপি প্রার্থী সমরেন্দ্র নাথ ঘোষও করোনায় আক্রান্ত। মাটিগাড়া–নকশালবাড়ির বিজেপি প্রার্থী আনন্দ বর্মণও রয়েছেন এই তালিকায়। এ ছাড়াও গোয়ালপোখরের তৃণমূল প্রার্থী গোলাম রব্বানিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তপনের তৃণমূল প্রার্থী কল্পনা কিস্কুও সংক্রামিত হয়েছেন। এর আগে এগরার বিজেপি প্রার্থী অরূপ ডাশ এবং বারুইপুর পশ্চিমের তৃণমূল প্রার্থী বিমান ব্যানার্জিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের বাকি চার দফার ভোট গ্রহণ কীভাবে হবে, তা নিয়ে আলোচনা করতে শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছে নির্বাচন কমিশন। 

Back To Top