আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিশ্ব–উষ্ণায়ণ থেকে নিজেদের প্রতিরোধ করতে যখন দেশজুড়ে গাছ লাগানোর কথা বলা হচ্ছে, তখন কেরল রাজ্যের কোচি এলাকার বাসিন্দারা স্থানীয় প্রশাসনকে গাছ কেটে ফেলার জন্য আর্জি জানিয়েছেন বলে খবর। এই বৈপরিত্য সিদ্ধান্তে পরিবেশবিদদের চোখ কপালে উঠেছে। নিত্যযাত্রীরা এই আর্জি জানানোয় জোর বিতর্কও তৈরি হয়েছে। ঘটনাস্থল আলুভা রেল স্টেশন। এখানকার নিত্যযাত্রীরাই রেল কর্তৃপক্ষের কাছ এই আর্জি জানিয়েছেন। 
কিন্তু এমন আর্জি কেন জানানো হল?‌ গাছ কাটার মতো বিষয় এখন অতি স্পর্শকাতর। সেখানে এমন আর্জি বেশ বেমানানও বটে। তবে গাছ কেটে ফেলার আর্জির কারণও বিরল। যা শুনলে সত্যিই চোখ কপালে উঠে যাবে। এখানে রোজ গাড়ি, মোটরবাইক রেখে কর্মস্থলে যান নিত্যযাত্রীরা। আর তার চারিদিকে রয়েছে প্রচুর গাছ। যেখানে বাসা বেঁধে রয়েছে প্রচুর পাখি। এই পাখিরা ওপর থেকে বিষ্ঠা ফেলে। আর তাতে গাড়ি, মোটরবাইকের কার্যত চেহারা পাল্টে যায়। এমনকী সেই পাখির বিষ্ঠা পরিষ্কার করতে সময়ও লাগে প্রচুর। 
এই সমস্যার সমাধানের জন্য গাছই কেটে ফেলার আর্জি জানানো হয়েছে। বিষ্ঠা পরিষ্কার করতে ২০ থেকে ৩০ মিনিট সময় লাগে। এই বিষয়ে একাধিকবার অভিযোগ জানিয়েও ফল হয়নি। এমন প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে পাখিদের জন্য অন্য বাসা তৈরি করে তাদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হোক। যদিও সেটা কতটা সম্ভব তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। রেলের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, গাছ কাটা তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। কারণ তাহলে বাস্তুতন্ত্র নষ্ট হবে।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top