আজকাল ওয়েবডেস্ক: নীতীশ কুমারের রাজ্যে এবার অন্য ধরনের ছবি ধরা পড়ল।‌ বিহারের রাজধানী পাটনায় এক বিরল বিবাহবিচ্ছেদের মামলা এখন চর্চিত হয়ে উঠেছে। স্বামীর নোংরা স্বভাবে বিরক্ত হয়ে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা করেছেন স্ত্রী৷ কী সেই নোংরা স্বভাব?‌ পাটনার মহিলা কমিশনের দপ্তরে অভিযোগপত্রে দায়ের করা হয়েছে, রোজ তিনি স্নান করেন না। আর ব্রাশও করেন না নিয়মিত৷ প্রত্যেকদিনের বদলে ১০–১০ দিন বাদে স্নান করেন৷ এমন অভিযোগে বিবাহবিচ্ছেদ আগে কখনও শোনেনি মহিলা কমিশন।
জানা গিয়েছে, স্বামীর এই নোংরা আচরণের জন্যই মহিলা কমিশনের দ্বারস্থ স্ত্রী সোনি দেবী। তিনি বৈশালী জেলার দেসরি অঞ্চলের নতুন গ্রামে বসবাস করেন৷ ২০১৭ সালে বিয়ে হয় তাঁদের৷ সোনি দেবী জানান বিয়ের আগে থেকে তাঁরা একে অপরকে চিনতেন না৷ বিয়ের মণ্ডপেই প্রথম দেখা হয়েছিল তাঁদের৷ বিয়ের পরে শ্বশুরবাড়িতে এসেই স্বামীর এই নোংরা স্বভাবের কথা জানতে পারেন৷
সোনি দেবীর অভিযোগ, স্বামী মণীশ রাম ঠিক করে কথা বলতে পারতেন না৷ সব সময়ে গ্রামীণ ভাষায় কথা বলতেন৷ এখন তাঁদের মধ্যে আর স্বামী–স্ত্রীর সম্পর্ক নেই৷ মহিলা কমিশনের পক্ষ থেকে তাঁদেরকে ২ মাসের সময় দেওয়া হয়েছে৷ স্বামী মণীশ রাম যাতে নিজেকে শুধরে নেন।

জনপ্রিয়

Back To Top