আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পেশা কফিন তৈরি। সেই রোজগারেই কোনওমতে সংসার চলে। ভাঙাচোড়া ঘর। টিনের চাল। একদিন সেই টিনের চাল ভেঙেই এসে পড়ল আজব এক প্রস্তরখণ্ড। আর সেই খণ্ডই বদলে দিল জোশুয়া হুটাগালুংয়ের ভাগ্য। ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার জোশুয়া এখন কোটিপতি। 
রাতে বসেছিলেন ঘরে। আচমকা বিকট শব্দ। জোশুয়া ঘরের বাইরে বেরিয়ে দেখেন এক খণ্ড পাথর। মাথার ওপর টিনের চাল ভেঙে পড়েছে ঘরে। ৩৩ বছরের যুবক দেখে বুঝতে পারেন, ‘‌পাশের কোনও বাড়ি থেকে কেউ ছোড়েননি। কারণ এই পাথর ছাদ লক্ষ্য করে ছোড়া অসম্ভব।’‌ বুঝতে পারেন, আসলে আকাশ থেকেই পড়েছে সেটি।
ছাদ ভেঙে আসলে একটি উল্কা এসে পড়ে জোশুয়ার বাড়িতে। এই ধরনের উল্কাকে বলে কার্বোনেশিয়াস কনড্রাইট। অত্যন্ত বিরল প্রকৃতির। বয়স ৪৫০ কোটি বছর প্রায়। এই উল্কাখণ্ডের এক গ্রামের দাম ৬৩ হাজার টাকা। 
আমেরিকার এক উল্কা সংগ্রাহক জেয়ার্ড কলিন্সকে সেটি বিক্রি করেছেন জোশুয়া। পরিবর্তে পেয়েছেন প্রায় ন’‌ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। কলিন্স আবার পরে সেটিকে এক উল্কা গবেষককে বিক্রি করেন। জোশুয়া অবশ্য এসবের খোঁজ রাখেননি। তাঁর স্বপ্ন ছিল, ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করা আর গ্রামে একটা গির্জা স্থাপন। তাতে আর অসুবিধা নেই এখন। 

ছবি ফেসবুক থেকে

জনপ্রিয়

Back To Top