আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মস্তিষ্কে চলছে অস্ত্রোপচার আর অপারেশনের বেডে শুয়ে গিটার বাজাচ্ছেন রোগী। এমনই আশ্চর্যজনক অস্ত্রোপচার করে আবারও খবরের শিরোনামে এলো বেঙ্গালুরুর ভগবান মহাবীর জৈন হাসপাতাল। ২০১৩ সালে প্রথম এখানে এই ধরনের অস্ত্রোপচার শুরু হয়। সেবারও চিকিৎসক শরণ শ্রীনিবাসন সারিয়ে তুলেছিলেন এক গিটারিস্টকে। এবারও তাঁর চেষ্টায় নতুন জীবন ফিরে পেলেন বাংলাদেশের গিটারিস্ট তাস্কিন আলি। ১৭ মে অস্ত্রোপচার হয় তাঁর। একই রোগ গিটারিস্ট ডিসোনিয়া। যে রোগে গিটারের তারের সঙ্গে সুর মেলাতে পারতেন না তিনি। পেশাদার গিটারিস্ট হয়েও বাঁ হাতের আঙুলগুলি কাজ করছিল না। থমকে যাচ্ছিল। দিনে ১৪ ঘণ্টা গিটার বাজাতেন তিনি। পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে শুরু করে। ২০১৭ সালে বেঙ্গালুরুর মহাবীর জৈন হাসপাতালে খবর জানতে পারেন।

সেই সঙ্গে পরিচয় হয় অভিষেক প্রসাদ নামে এক গিটারিস্টের। যিনি নিজে এই অস্ত্রোপচার করিয়েছিলেন। তার মাধ্যমেই বেঙ্গালুরুর চিকিৎসক শ্রীনিবাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। রোগ সারাতে নিজের সবচেয়ে প্রিয় বাদ্যযন্ত্র আড়াই লাখ টাকায় বিক্রি করে দেন তিনি। রোগের কথা মা–বাবাকে জানতে দেননি তিনি। 
বেঙ্গালুরুতে থাকা এক আত্মীয়ের সহযোগিতায় নির্ধারিত দিনে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। ১০ ঘণ্টা ধরে চলে অস্ত্রোপচার। লোকাল অ্যানেস্থেশিয়া করা হয়। কারণ এই অস্ত্রপচারে রোগীর জ্ঞান থাকা জরুরি। তাকে বলা হয়েছিল গিটার বাজাতে। যাতে কোন স্নায়ুতে সমস্যা হচ্ছে সেটা ধরা যায়। সেই মত অপারেশন থিয়েটারের বেডে বসে গিটার বাজিয়ে যান আলি আর স্নায়ু সারতে থাকেন চিকিৎসকরা। সফল হয়েছে অস্ত্রোপচার। এখন সুস্থ আলি। আর কয়েকদিন পর ফিরে যাবেন নিজের গিটারের জগতে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top