শুভঙ্কর পাল, শিলিগুড়ি: নির্মীয়মাণ উড়ালপুলের পর এবার হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল সেতু। ফের শিরোনামে শিলিগুড়ি মহকুমার ফাঁসিদেওয়া ব্লক। গত ১১ আগস্ট ফাঁসিদেওয়ার কান্তিভিটায় ভোরের দিকে ভেঙে পড়ে নির্মীয়মাণ উড়ালপুলের একাংশ। শুক্রবার কান্তিভিটা থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে মানগছে ভেঙে পড়ে একটি সেতু। এর জেরে কয়েক ঘণ্টা সেখানে ঝুলে রইল ইট–‌বোঝাই একটি ট্রাক। চালক অবশ্য অক্ষত। 
সেতুটি ভেঙে আশপাশের ৪টি গ্রামের মধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। মানগছ, ফকিরগছ, রাখালগছ, গোয়ালগছের মাঝে থাকা পিছলা নদীর ওপরে ছিল সেতুটি। ১৯৯৫ সালে শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ সেতুটি তৈরি করে। রক্ষণাবেক্ষণের অভাব বহুদিন ধরেই ছিল। সেতুর বেহাল দশার কথা গত দু’‌বছর আগে বিডিও মহকুমা পরিষদকে জানান। অভিযোগ, তার পরও কাজ হয়নি। শুক্রবার সকালে একটি ইট–‌বোঝাই ট্রাক সেতুতে উঠতেই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে সেতুটি। বিকট শব্দ শুনে ছুটে আসেন গ্রামবাসীরা।
ব্লক প্রশাসনের কর্তারা ছুটে যান। ১১টা নাগাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। পুলিসের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। ট্রাকে থাকা ইট অন্য একটি গাড়িতে তুলে ক্রেন দিয়ে ট্রাকটিকে তোলা হয়। ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দূরেই আরও একটি বেহাল সেতু পরিদর্শনে যান মন্ত্রী গৌতম দেব। পরে তিনি বলেন, ‘‌বহুদিন ধরে পিছলা নদীর ওপর সেতুটি বেহাল। বিডিও মহকুমা পরিষদে রিপোর্ট পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু বাম বোর্ড নজর দেয়নি। যার ফলে আজ এই দুর্ঘটনা। আপাতত একটি বাঁশের সাঁকো হবে। মহকুমা পরিষদ অপারগ হলে রাজ্য সরকার সেতু গড়ে দেবে। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে রিপোর্ট পাঠাব।’‌  উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষও ভেঙে–‌পড়া সেতুটি দেখতে যান। সেতু সংস্কারে বাম বোর্ডের উদাসীনতা রয়েছে বলে তিনিও অভিযোগ করে বলেন, ‘‌সেতু ভেঙে পড়েছে শুনেও সভাধিপতি ঘটনাস্থলে আসেননি। বহু জায়গায় দুর্বল সেতু রয়েছে। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের তরফে সেগুলি সমীক্ষা করা হতে পারে।’‌ ঘটনাস্থলে যান শিলিগুড়ির মহকুমা শাসক সিরাজ দানেশ্বর, মহকুমা পরিষদের বিরোধী দলনেতা কাজল ঘোষ ও পুলিস আধিকারিকেরা। একটি ফরেনসিক দলও গিয়ে সেতুটি পরীক্ষা করে। অন্যদিকে শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের সভাধিপতি তাপস সরকার বলেন, ‘‌বর্ডার এরিয়া ডেভেলপমেন্ট প্রোজেক্টে ফঁাসিদেওয়া পঞ্চায়েত সমিতি সেতুটি তৈরি করেছিল। বিডিও আমাদের ইঞ্জিনিয়ারিং সেলে যে কাগজ পাঠিয়েছিলেন তাতে কিছু ভুল ছিল। আমরা তা জানিয়েও দিয়েছিলাম। শনিবার আধিকারিকদের নিয়ে আলোচনায় বসা হবে‌।’‌ 

 

শিলিগুড়ির কাছে ফাঁসিদেওয়ায়। শুক্রবার সকালে। ছবি: এএফপি

জনপ্রিয়

Back To Top