সুনীল চন্দ,রায়গঞ্জ: গত ১১ দিনে সাপের কামড়ে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে রায়গঞ্জ মহকুমা এলাকায়। জেলায় এই সংখ্যা আরও বেশি। গত ১ মাসে জেলায় সাপের কামড়ে আহতের সংখ্যা শতাধিক। জেলার সর্প বিশারদ সংস্থা পিপলস ফর অ্যানিম্যাল–‌এর কর্তা গৌতম তান্তিয়া জানালেন, গত একমাসে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাঁচশোরও বেশি সাপ ধরেছেন তাঁরা। এই অবস্থায় সাপ–‌আতঙ্ক তৈরি হয়েছে গোটা জেলা জুড়ে। অভিযোগ, মৃত এই ৮ জনের মধ্যে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে ওঝা বা গুনিনের ওস্তাদিতে। ওঝার ঝাড়ফুঁকে দেরি হয়ে যাওয়ায় শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে এনেও রোগীকে আর বাঁচানো যায়নি। 
তাই সর্প বিশারদ সংস্থা–‌সহ বিজ্ঞান মঞ্চের সদস্যরা প্রশ্ন তুলেছেন সচেতনতা নিয়ে। তাঁরা চান, পঞ্চায়েত স্তরে সচেতনতা গড়ে তোলা হোক ওঝা বা গুণিনের বিরুদ্ধে। সাপের কামড়ে মৃত ৮ জনের মধ্যে ৩ জনই ছাত্রছাত্রী। গত ৫ জুলাই মৃত্যু হয়েছে সবিতা সিংহর, ১১ জুলাই দেবা দেবশর্মার, ১৭ জুলাই শেফালি সোরেনের। এছাড়াও মৃত্যু হয়েছে গৃহবধূ আঞ্জুরা খাতুনের। প্রায় প্রতিদিনই আসছে সাপে কেটে মৃত্যুর খবর। মঙ্গলবার সকালেই মৃত্যু হয়েছে গৃহবধূ সুখো বর্মনের (‌৪০)‌। স্বামীর নাম নরেন বর্মন। বাড়ি রায়গঞ্জ থানা এলাকার বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের রাঙা পুকুরে। সুখো রান্না করবেন বলে রান্না চাপিয়ে গিয়েছিলেন পাশের খড়ি রাখার ঘরে। খড়ি আনতে গেলে সাপে ছোবল মারে তাঁকে। এরপরেই সুখোকে নিয়ে যাওয়া হয় ওঝার কাছে। ওঝা অজিত বর্মন নিজের বাড়ির মনসা মন্দিরের সামনে সুখোকে নিয়ে গিয়ে স্নান করান। তারপর শুরু হয় ঝাড়ফুঁক। দীর্ঘক্ষণ চলে এই ঝাড়ফুঁক। সুখোর পরিবারের লোকজন–‌সহ পাড়ার লোকেরাও সুখোকে বাঁচানোর জন্য বারবার কাতর আর্তি জানাতে থাকে ওঝার কাছে। মুখে গ্যাঁজলা বেরনোর পর প্রতিবাদে সোচ্চার হন স্থানীয় যুবকরা। তাঁরাই সুখোর স্বামীকে চাপ দেন সুখোকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে। এরপরই সুখোকে প্রায় নিথর অবস্থায় আনা হয় রায়গঞ্জ সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে। চিকিৎসকরা পরীক্ষার পর মৃত বলে ঘোষণা করেন সুখোকে। অভিযোগ, এভাবেই এর আগে রায়গঞ্জ ও লাগোয়া ইটাহার থানা এলাকার আরও ২ জনের মৃত্যু হয় ওঝার ওস্তাদিতে। পিপলস ফর অ্যানিমেল সংস্থার অন্যতম কর্তা গৌতম তাণ্ডিয়া বলেন, ‘‌আমাদের সংস্থার তরফে কোথাও সাপ ধরতে গেলেই প্রচার চালানো হয় সাপে কামড়ানো নিয়ে অযথা ভয় না পেতে। প্রচার চালানো হয় ওঝা বা গুণিনের বিরুদ্ধে। তবে জোরদার প্রচার চাই পঞ্চায়েত স্তরে।        ছবি প্রতীকী

জনপ্রিয়

Back To Top